রাজশাহীতে অতিরিক্ত মদপানে কলেজছাত্রীর মৃত্যু(রাজশাহীর সংবাদ)

 

 

 

মঈন উদ্দীন, রাজশাহী ব্যূরো: রাজশাহী নগরের ডাশমারি এলাকার একটি বাড়ি থেকে রিতু খাতুন (২০) নামে এক কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে মতিহার থানা পুলিশ রিতুর বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।
অতিরিক্ত মদপানের কারণে রিতুর মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। এ ঘটনায় সুমরা ও রেজাউল নামের দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানা হেফাজতে নেয়া হয়েছে বলে মতিহার থানার ওসি জানান। রিতু মতিহার থানার ডাশমারী পূর্বপাড়া মহল্লার মৃত নেকবর হোসেনের মেয়ে। রিতু কমেলা হক ডিগ্রী কলেজের ছাত্রী ছিল।
মতিহার থানার ওসি মেহেদী হাসান জানান, স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী রিতু নেশাগ্রস্ত ছিলেন বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাতে মির্জাপুর কিন্ডার গার্টেন স্কুলের দ্বিতীয় তলায় সুরমা বেগমের বাসায় মদপান করে রিতু। সকালে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে সুরমা রিতুর মাকে খবর দেয়। বাড়িতে যাওয়ার পর রিতু মারা যান। পরে খবর পেয়ে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সময় তার শরীরে মদের গন্ধ পাওয়া যায়। এছাড়াও সুরবার বাড়িতে যে ঘরে রিতু ছিল সেখানেও মদের বোতল পাওয়া গেছে। সুরমার বাসায় মাঝে মধ্যে গিয়ে রিতু থাকতো বলে জানান তিনি।
ওসি বলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে রিতুর লাশের ময়নাতদন্ত করা হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিতভাবে বলা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

রাজশাহীতে ২৪ ভরি সোনাসহ গৃহকর্মী গ্রেপ্তার

রাজশাহী ব্যূরো : রাজশাহীতে ২৪ ভরি সোনাসহ এক গৃহকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে নওগাঁর মহাদেবপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আটককৃত গৃহকর্মী নাম ববিতা (৩০) বেগম। তিনি নওগাঁর সূর্য নারায়পুর এলাকার মৃত লোকমানের মেয়ে।
নগরীর উপশহর নিউ মাকের্ট এলাকার ব্যবসায়ী শমিউল আলম মানিকের বাসা বাড়িতে কাজ করতে বাবিতা। বৃহস্পতিবার দুপুরে মানিকে স্ত্রী তার সন্তানকে ক্যানপাবলিক স্কুলে আনতে যান। এসময় বাড়িতে কেউ ছিলো না। সেই সুবাদে গৃহকর্মী ববিতা আলমারি খুলে অনুমানিক ৫০ ভরি সোনাসহ কিছু জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়।
তিনি আরো বলেন, পরে মানিকের স্ত্রী বাসায় এসে এলো-মেলো দেখে তার স্বামী মনিককে জানায়। পরে তাকে অনেক খোঁজ করেও পাওয়া যায়নি। এবিষয়ে ঘটনার দিন বিকেলে বোয়ালিয়া থানায় একটি অভিযোগ করেন মালিক মানিক। অভিযোগের সময় তারা অনুমানিক ৫০ ভরি সোনার কথা জানায়। এ অভিযোগের ভিত্তিতে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।
শমিউল আলম মানিক বলেন, অনুমান করা হচ্ছে ৫০ ভরি সোনা ছিলো। এর মধ্যে একটা কানের দুল পাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া আরো ছোট ছোট সোনার জিনিসও পাওয়া যাচ্ছে না।
বোয়ালিয়া থানার (ওসি তদন্ত) সেলিম বাদশা জানায়, ববিতাকে আনুমানিক ২৪ ভরি সোনাসহ গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আনা হয়েছে। সোনার মালিক রয়েছেন। এ বিষেয় আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

আরডিএর সাবেক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন

রাজশাহী ব্যূরো: অবশেষে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) চাঞ্চল্যকর নিয়োগ দুর্নীতি মামলার চার্জশিট অনুমোদন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দীর্ঘ তদন্তের পর এ মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন আরডিএ’র সাবেক চেয়ারম্যান (যুগ্ম-সচিব) আব্দুল মান্নান, কর্তৃপক্ষের সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রব জোয়ার্দ্দার ও বর্তমান সহকারী প্রকৌশলী শেখ কামরুজ্জামান।
যাচাই-বাছাই ও আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে গত ২ জানুয়ারি সাবেক ও বর্তমান তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন করেছেন দুদকের কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম। এই তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিলের জন্য তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক (ডিডি) ফরিদুর রহমানকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
এদিকে তদন্ত কর্মকর্তা ফরিদুর রহমান চার্জশিট অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, অভিযুক্ত তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর নিয়োগ দুর্নীতির চার্জশিট আদালতে জমা দেয়া এখন সময়ের ব্যাপার।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে ২০০৪ সালের ১৬ আগস্ট দৈনিক সোনালী সংবাদ পত্রিকায় একজন সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল), একজন নগর পরিকল্পক (এটিপি), একজন উপ-সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল), একজন নিম্নমান সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিক, একজন কম্পিউটার অপারেটর, একজন গাড়ি চালক ও একজন নক্সকার, একজন সার্ভেয়ার , একজন এমএলএসএস, একজন প্রহরী ও একজন ঝাড়ুদার নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এই বিজ্ঞপ্তিতে সাড়া দিয়ে তিন শতাধিক চাকরি প্রার্থী আবেদন করেন।
জানা যায়, প্রথম বিজ্ঞপ্তির পদগুলির মধ্যে ১ থেকে ৭নং পর্যন্ত পদ লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে ও দ্বিতীয় বিজ্ঞপ্তির সবগুলি পদ লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে প্রার্থীর যোগ্যতা যাচাই সাপেক্ষে নিয়োগ করার শর্ত উল্লেখ করা হয়।
বিজ্ঞপ্তির শর্তানুযায়ী ২০০৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর শুধুমাত্র সহকারী প্রকৌশলী, সহকারী নগর পরিকল্পক, উপ-সহকারী প্রকৌশলী, নিম্নমান সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিক, কম্পিউটার অপারেটর ও সার্ভেয়ার পদে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের নাম ও ঠিকানা যথারীতি কর্তৃপক্ষের নোটিশ বোর্ডে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়।
পরে ২১ সেপ্টেম্বর প্রয়োজনীয় মূল সনদ ও কাগজপত্রসহ উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য নোটিশে নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু তার আগেই ১৯ সেপ্টেম্বর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত একটি নোটিশে রহস্যজনকভাবে লিখিত পরীক্ষার ফলাফল বাতিল করে সকল আবেদনকারীকে শুধুমাত্র মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য আরডিএ ভবনে উপস্থিত হতে নির্দেশ দেওয়া হয়।
দীর্ঘ অনুসন্ধান ও তদন্তে দুদক দেখতে পায় লিখিত পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়া শেখ কামরুজ্জামানকে শুধুমাত্র মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে সহকারী প্রকৌশলী পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া যারা লিখিত পরীক্ষায় কৃতকার্য হয়েছিলেন তারা কেউ নিয়োগ পাননি। তবে যারা লিখিত পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছিলেন তাদের মধ্যে থেকেই বিজ্ঞাপিত পদগুলিতে নিয়োগ দেওয়া হয়।
দুদক তদন্তে আরো দেখতে পায়, শুধুমাত্র দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির লক্ষ্যে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে আবেদনকারী প্রার্থীদের বয়সসীমা উল্লেখ করা হয়নি। ৪৭ বছর বয়সের প্রার্থীকেও নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। দুদকের তদন্ত থেকে আরো জানা যায়, আরডিএর সাবেক চেয়ারম্যান (যুগ্ম-সচিব) ও নিয়োগ কমিটির সভাপতি আব্দুল মান্নানকে ২০০৪ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ওএসডি করা হলে তিনি তার শেষ কর্মদিবসে সবগুলি নিয়োগপত্রে স্বাক্ষর করে রাজশাহী ত্যাগ করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নিয়োগ বঞ্চিতদের অন্যতম ইকবাল হোসেন এই অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিকার চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনে লিখিত অভিযোগ করেন। দীর্ঘ অনুসন্ধানের পর অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত হওয়ায় দুদকের উপ-পরিচালক আব্দুল করিম ২০১১ সালের ১৭ জুলাই রাজশাহীর শাহমখদুম থানায় আব্দুল মান্নান, আব্দুর রব জোয়ার্দ্দার ও শেষ কামরুজ্জামানকে আসামি করে ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় একটি মামলা করেন।
তদন্ত শেষে দুদকের উপ-পরিচালক ফরিদুর রহমান কয়েক মাস আগে চার্জশিট অনুমোদনের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে আবেদন করেন। গত ২ জানুয়ারি দুদক কমিশনার এএফএম আমিনুল ইসলাম, চেয়ারম্যানের মতামত সাপেক্ষে তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন করেন। ডিডি ফরিদুর রহমান জানান, এখন যেকোনো দিন তিনি আদালতে চার্জশিট দাখিল করবেন।
অন্যদিকে অভিযোগে জানা গেছে, অনিয়ম দুর্নীতির মাধ্যমে আরডিএতে যে ১৬ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল তাদের নিয়োগ বিধিসম্মত না হওয়ায় তাদের বেতনভাতা বন্ধের জন্য সুপারিশ করা হলেও আরডিএর বর্তমান প্রশাসন তা কার্যকর করেনি।
এছাড়া নিয়োগকৃত ১৬ কর্মকর্তা কর্মচারিদের মধ্যে নিয়োগের সময় যাদের বয়স ৩০ বছরের বেশি ছিল তাদের বয়স প্রমার্জনের সুযোগ নেই বলে আইন ও সংস্থাপন মন্ত্রণালয় মতামত দিলেও আরডিএর বর্তমান চেয়ারম্যান তা আমলে নেননি। ফলে এই ১৬ কর্মকর্তা কর্মচারির বেতন ভাতা বাবদ প্রতি বছর কোটি টাকা সরকারের ক্ষতি হচ্ছে। দুদকের উপ-পরিচালক ফরিদুর রহমান বলেন, নিয়োগ দুর্নীতিতে জড়িতরা যে কোনো সময় গ্রেফতার হতে পারেন। এছাড়া চার্জশিট অনুমোদন হওয়ায় নিয়োগপ্রাপ্তদের বরখাস্ত করা কর্তৃপক্ষের দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে।

পবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নতুন এ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর

পবা প্রতিনিধি: পবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরকারি নতুন এ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে প্রধান অতিথি থেকে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত এ এ্যাম্বুলেন্সের চাবি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। তিনি পবা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রিজাউল হক চৌধুরীর কাছে এ চাবি হস্তান্তর করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার বার্নাবাস হাসদাদ, পবা উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি হারুন আর রশিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন, উপজেলা কৃষক লীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম, হুজুরীপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি লুৎফর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম, হুজুরীপাড়া ইউনিয়ন’র সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম মোস্তফা, দেওয়ান রেজাউর করিম, হুজুরীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবুল কাশেমসহ কমপ্লেক্সের ডাক্তার ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

বিএমডিএতে তৃণমুল পযার্য়ের কৃষির উন্নয়ন কর্মশালা

রাজশাহী ব্যূরো: রাজশাহীতে বরেন্দ্র অঞ্চলে তৃণমুল পর্যায়ে কৃষির উন্নয়ন ও বাস্তবায়নে এসডিজি গোলের বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে । শনিবার সকালে বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষে হল রুমে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় বরেন্দ্র অঞ্চলের ১৬ টি জেলার ১২৫ টি উপজেলার তৃণমুলপর্যায়ের কৃষির উন্নয়ন, বাস্তবায়ন, সমস্যা ও সমাধান নিয়ে কৃষিবিদ,গবেষক ও কর্মকর্তাগণ আলোচনা করেন ।
বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ড. আকরাম হোসেন চৌধুরীরর সভাপতিত্বে কর্মশালায় মুল প্রবন্ধ উপন্থাপন করেন অস্ট্রেলিয়ার কার্টিন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক অধ্যাপক ডোরা মারিনোভা । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন , বিএমডিএর নিবার্হী পরিচালক মো. আব্দুর রশিদ, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রধান অতিথির বক্তব্যে বরেন্দ্র এলাকার কৃষির উন্নয়নে পানির ব্যবহার সাশ্রয়ী ফসল উৎপাদন, উচ্চমুল্যের ফসল উৎপাদন ,উন্নত বীজ প্রদান , ফসলের ন্যায্য মুল্য প্রাপ্তি , জমির সুরক্ষা ও ফসল উৎপাদনের পরিবেশ তথা কৃষির সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোকপাত করেন ।
কর্মশালায় তৃণমুল পযার্য়ের কৃষি নিয়ে আরো আলোচনা করেন, এশিয়া উন্নয়ন ব্যাংকের উপদেষ্টা ড. এম আসাদুজ্জামান , অস্ট্রেলিয়ার কার্টিন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আমজাদ হোসেন, সম্মানিত অতিথি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. চৌধুরী সারোয়ার জাহান সজল, অধ্যাপক ড. মনজুর হোসেন ও রুয়েটের অধ্যাপক ড. নিয়ামুল বারি।
কর্মশালায় বিএডিসি. বারি, ইরি, ধান গবেষনা, গম গবেষনা, তুলা উন্নয়ন, ফল গবেষণা,কৃষি গবেষণা, মৃত্তিকা সম্পদ , কৃষি সম্প্রসারণ ও বিএমডিএর শতাধিক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন ।

রাজশাহীতে বেড়েছে সবজির দাম

রাজশাহী ব্যূরো: রাজশাহীর বাজারে বেড়েছে সবজির দাম। সবজিতে গত সপ্তাহের তুলনায় কেজিতে বেড়েছে পাঁচ থেকে ২০ টাকা। বাজারে তুলনামূলক ভাবে বেগুনে কেজিতে ১৫ থেকে ২০ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০ টাকা। এছাড়া পেঁয়াজের দাম না বাড়লেও মরিচে ১০ থেকে ১২ বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা। সবজি ব্যবসায়ীরা বলছে, বাজারে হাঠৎ করে সবজি সরবরাহ কম তাই দাম একটু বেশি। পর্যাপ্ত সবজি বাজারে সরবরাহ থাকলে আবার দাম অনকেটাই কমে যাবে।
এছাড়া বাজারে মাংস ও মাছের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে মাংস ক্রেতারা বলছে, বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন দামে গরু-মহিষের মাংস বিক্রি হচ্ছে। আশে-পাশের এলাকায় মাইকিং করে ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকা দরে বিক্রি করছে। আর সাহেব বাজারে ৪০০ থেকে ৪৪০ টাকা দরে কেউ কেউ বিক্রি করছে।
নগরীর বিনোদপুর বাজার এলাকার ব্যবসায়ী বিক্রেতা মো. শাহিন বলেন, বাজারে প্রতিকেজি আলু ২০ থেকে ২৪ টাকা, পেঁপে ১৫ টাকা, পটল ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, ঠেঁরস ৩০ টাকা, প্রতি হালি লেবু ১৫ থেকে ২০ টাকা, প্রতিকেজি মিষ্টি কুমড়া ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, শসা ২৫ থেকে ৩০ টাকা, প্রতি পিস লাউ ১৫ থেকে ২৫ টাকায় বিক্রি হয়।
এছাড়া বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, ফুলকপি ২৫ থেকে ৩০ টাকা, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, টমেটো ৩০ থেকে ৬০ টাকা, গাজর ৪০ টাকা, পাতা কপি প্রতিটি ১৫ টাকা, মূলা ১৫ টাকা, সিম ৪০ থেকে ৫০ টাকা, পুই শাক ২০ টাকা, আদা ১০০ টাকা, রসুন ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সবজি ক্রেতা আসমা রহমান জানান, কয়েকদিন থেকে সবজির দাম অনেক বেড়েছে। ২০ থেকে ৩০ টাকার বেগুন ৪০-৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া আলু বাদে সব সবজির দাম বেশি।
নগরীর সাহেববাজার মাছ আড়তের মাছ ব্যবসায়ী আনোয়ার জানান, প্রতিকেজি রুই ২২০ থেকে ২৮০ টাকা, কাতল মাছ ২৫০ থেকে ২২০ টাকা, পুটি ১৬০ থেকে ২০০ টাকা গ্লাসকাপ ২০০ থেকে ১৫০ টাকা, তেলাপিয়া মাছ ১২০ থেকে ১৬০ টাকা, কই মাছ ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা, মিরকা মাছ ১৬০ থেকে ১৩০ টাকা, জাপানি ১২০ থেকে ১৪০ টাকায় বিক্রি হয়।
মাছ কিনতে আসা আব্দুল আলিম বলেন, সবজির তুলনায় মাছের দাম কমই আছে। সবজিচ খাওয়া বাদে মাছ খাওয়াই ভালো। কিছু মাছ ছাড়া সব মাছের দাম আগের মতই রয়েছে।
এদিকে নদীর প্রতিকেজি ইলিশ ৮০০ থেকে হাজার, কাটা পাতাসি ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, জিওল ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, আইড় ৮০০ থেকে ৫০০ টাকা, বাইম ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, বোয়াল ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, টেংরা ৪০০ থেকে ২৮০ টাকা, বাঁশপাতা ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা, পাবদা ৫০০ টাকা, চিংড়ি ৮০০ থেকে ৬০০ টাকা, দেশি মাগুর ৬০০ টাকা ও ময়া মাছ ২৮০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হয়।
গরুর মাংস বিক্রেতা রবি বলেন, প্রতিকেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৪২০ টাকা এবং খাশির গোশত ৭০০ টাকায় বিক্রি হয়। এদিকে মুরগি ব্যবসায়ীরা বলেন, ব্রয়লার মুরগি ১১০ ও ১১৫ টাকা, দেশি মুরগি ২৫০ থেকে ২৮০ টাকা, সোনালী ১৯০ টাকা। এছাড়া প্রতিহালি মুরগির ডিম ২২ থেকে ২৬ টাকায় বিক্রি হয়।

কেশরহাটে জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আসাদের গণসংযোগ

মোহনপুর প্রতিনিধি: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের ৪ বছর পূর্তিতে মোহনপুর উপজেলার কেশরহাটে উন্নয়নের বার্তা নিয়ে গণসংযোগ ও পথসভা করেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহা. আসাদুজ্জামান আসাদ। আজ শনিবার দুপুরে কেশরহাট বাজারে নৌকা প্রতিকের পক্ষে গণসংযোগ করেন তিনি। এ সময় তিনি মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়ন ও দেশের অগ্রযাত্রা তুলে ধরে নৌকা প্রতিকে ভোট প্রার্থনা করেন।
কেশরহাট পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি শাহেদুজ্জামান মুক্তার সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান চঞ্চল, সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ফারুক হোসেন ডাবলু, মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য মো. সুলতান আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানা, পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা পরিষদ সদস্য মো. শফিকুল ইসলাম সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হোসেন খান, সাবেক চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন বকুল, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ, শিক্ষক নেতা মো. আশরাফুল ইসলাম সুলতান, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা আব্দুর জলিল জামান, মোহনপুর উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. মাসুদ রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. খাইরুল ইসলাম, কেশরহাট পৌর যুবলীগ সহ-সভাপতি মহসিন আলী স্বর্ণকার, পৌর যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কাউন্সিলার মো. আব্দুর সাত্তার মন্ডল, যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব আলী স্বর্ণকার, প্রচার সম্পাদক খন্দকার তাপস মাহমুদ, মোহনপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি বিন বিল্লাহ, জাতীয় শ্রমীক লীগ মোহনপুর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম মিলন, আওয়ামী লীগ নেতা মিরাজুল ইসলাম মতিন, মোহনপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিপন শেখ, উপজেলা তাঁতী লীগ সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাজু, পৌর কৃষক লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. মকবুল হোসেন স্বর্ণকার, আওয়ামী লীগ নেতা আজাহার আলী, মফিজ উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা আতাউর রহমান আতা, রানা, হিমেল, তুষার, শাহিন, রায়হান, মারুফ।
এছাড়াও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ওয়ার্ডের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মঈন উদ্দীন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.