জামায়াত আমিরের ছেলে ছাত্রলীগ সভাপতি

%e0%a7%a6%e0%a7%a7%e0%a7%a7%e0%a7%a7এশিয়ানবার্তা: নাটোরের সিংড়া পৌর জামায়াতে ইসলামীর আমিরের ছেলে এবার উপজেলা ছাত্রলীগের নির্বাচনে সভাপতি হয়েছেন। ছাত্রলীগের সভাপতি পদে পৌর জামায়াতের আমির রওশন আলীর ছেলে খালিদ হাসান নির্বাচিত হওয়ায় বিস্মিত হয়েছেন এলাকাবাসী। চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

গত শনিবার নাটোরের সিংড়ায় আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সিংড়া উপজেলা, পৌর ও গোল ই আফরোজ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় সাংসদ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের উপস্থিতিতে সম্মেলনে নতুন কমিটি নির্বাচন করা হয়। নবনির্বাচিত সভাপতি খালিদ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদের বড় বোনের ছেলে।

গত শনিবার রাতে খালিদ হাসানের সভাপতি হওয়ার খবর প্রচারিত হওয়ার পর থেকে ছাত্রলীগের তৃণমূলের নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে সমালোচনা শুরু হয়েছে। সিংড়ার চৌগ্রাম ইউনিয়নের এক ছাত্রলীগ কর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, জামায়াতের বড় একজন নেতার ছেলেকে উপজেলা ছাত্রলীগের সর্বোচ্চ পদে বসানো ঠিক হয়নি। আওয়ামী লীগের একজন প্রভাবশালী নেতার ভাগনে হওয়াটাই তাঁর বড় যোগ্যতা হিসেবে দেখা হয়েছে। কারণ, এটা নিয়ে প্রকাশ্যে সমালোচনা করার সাহস কারও নেই। তাই সবাই মুখ বুজে সহ্য করছে।

স্থানীয় ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী জানান, স্থানীয় রাজনীতিতে খালিদ হাসান তেমন একটা সক্রিয় ছিলেন না। প্রতিমন্ত্রীর ভাগনে হিসেবে বেশি পরিচিত ছিলেন। কিছুদিন তিনি প্রতিমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানার জন্য খালিদ হাসান এবং তাঁর বাবার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাঁরা ফোন ধরেননি। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিবুল হাসানের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়। তিনিও ফোন ধরেননি।

তবে নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হকের মতে, জামায়াত আমিরের ছেলের ছাত্রলীগ সভাপতি হওয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলার কিছু নেই। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, খালিদ হাসান ঢাকার আহসান উল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। তিনি কাউন্সিলরদের ভোটে সিংড়া ছাত্রলীগের নেতা নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগে বড় কোনো পদে দায়িত্ব পালন না করলেও তিনি পৌর ছাত্রলীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি আরও বলেন, খালিদ হাসানের বাবা কোন দল করেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কিছু নেই। তিনি ব্যক্তিগত যোগ্যতায় নেতা নির্বাচিত হয়েছেন।

নাটোর এনএস সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বুলবুল আহমেদ বলেন, ‘সম্মেলনে আমি উপস্থিত ছিলাম। সেখানে নিয়মতান্ত্রিকভাবেই খালিদ হাসানকে সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে। এদিক থেকে সমালোচনার করার কিছু নেই। তাঁর বাবার পরিচয় জানা থাকলে যে কেউ এটা নিয়ে প্রশ্ন তুলতেই পারেন। তবে সবকিছু নির্ভর করবে তাঁর (খালিদ হাসানের) কর্মকাণ্ডের ওপর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.