নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে গণসংযোগ করবেন খালেদা জিয়া

000এশিয়ানবার্তা: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে গণসংযোগ করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। যদিও এখনো তারিখ নির্ধারণ হয়নি। তবে ডিসেম্বরে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাতে তিনি দুইবার নির্বাচন সংশ্লিষ্ট এলাকায় যেতে পারেন। দলটি সিনিয়র এক নেতা এমনটা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, নাসিক নির্বাচনে প্রচারণা চালাতে খালেদা জিয়ার কোন সাংবিধানিক বাধা নেই। তাই দলীয় প্রার্থী এ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানকে জয়ী করতে নারায়ণগঞ্জে গিয়ে জনগণের কাছে ভোট চাইবেন তিনি। এছাড়া বিএনপির সিনিয়র নেতারাও প্রচার প্রচারণায় অংশ নিবেন।

জানতে চাইলে দলটির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন বিএনপির জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তাই এটাকে আমরা গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। ভোটের প্রচার প্রচারণা জন্য সেভাবেই দল থেকে দিকনির্দেশনা দেওয়া হবে। বিএনপি চেয়ারপারসনের নারায়াণগঞ্জ নির্বাচনে প্রচারণা চালাতে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এখনও সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি।

বিএনপির প্র্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, নির্বাচনে আমার পক্ষে প্রচারণা চালাতে আসবেন ম্যাডাম। এ বিষয়ে দায়িত্বশীলদের সাথে কথা হয়েছে। দুই বার বিএনপি চেয়ারপারসন নারায়ণগঞ্জে আসবেন। তবে এখনই নির্দিষ্ট করে দিন বা তারিখ বলা সম্ভব না। তিনি বলেন, আমাদের জরিপে সিটিতে বিএনপির ৬৫ ভাগ ভোট আছে। এ ভোট পেলেই তো ধানের শীষের জয় হবে। নারায়ণগঞ্জের মানুষ জেগে উঠেছে তারা পরিবর্তন চাচ্ছে। লেভেল প্লেইং ফিল্ড হলে বিএনপির জয় সুনিশ্চিত। এক্ষেত্রে যদি ম্যাডাম প্রচারণায় অংশ নেন, তাহলে ভোটের জোয়ার ধানের শীষেই হবে ইনশাল্লাহ। সাখাওয়াত বলেন, নারায়ণগঞ্জের বিএনপি যেভাবে জেগে উঠেছে সাধারণ মানুষ যেভাবে জেগে উঠেছে সেখানে বিএনপির ধানের শীষকে ঠেকানো অনেক কষ্ট হবে।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় ও তৃণমূলে দুটো মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। একটি নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও আরেকটি নারায়ণগঞ্জ নগরীতে স্থাপন করা হবে। এর বাইরে গুলশানের চেয়ারপারসনের কার্যালয় থেকেও মনিটরিং করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনকে দুটো অর্থে সরকারের শেষ পরীক্ষা বলে ধরে নিয়ে নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী দেয় বিএনপি। দলটির নীতিনির্ধারকরা মনে করেন আগামী জাতীয় নির্বাচনে আগে এই নির্বাচনটি সরকারের সামনে বড় একটা চ্যালেঞ্জ। তাই এরআগে নিবার্চনগুলোতে সরকার একচেটিয়াভাবে যে প্রভাব খাটিয়ে ফলাফল তাদের পক্ষে নিয়েছে। এবার এই নির্বাচনে সরকারের ভূমিকা কি দাঁড়ায় তা পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে বিএনপি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.