বাংলাদেশ একটি উগ্র মৌলবাদী দেশ, আমার দেশ হতে পারে না:তসলিমা নাসরিন

04 এশিয়ানবার্তা: ‘ভারত আমার দেশ, বাংলাদেশের মতো একটি উগ্র মৌলবাদী দেশ আমার দেশ হতে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। ভারতের গোয়ায় আয়োজিত ইন্ডিয়া আইডিয়াস কনকালেভ- ২০১৬’র আলোচনাসভায় এই মন্তব্য করেছেন বলে ভারতের প্রভাবশালী গণমাধ্যম এনডিটিভি রোববার এক প্রতিবেদনে জানায়।

১৯৯৪ সালে এ বিতর্কিত লেখিকাকে বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত করা হয়। তিনি বলছেন, বাংলাদেশ দিন দিন আরো উগ্র মৌলবাদী হয়ে উঠছে। সাম্প্রতিক সময়ে নাসিরনগর হিন্দু পরিবারের উপর হামলা করার বিরুদ্ধেও তিনি প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তিনি তার ফেসবুকে লিখেছিলেন, ধর্মীয় উগ্রবাদই একদিন আমাদের পৃথিবীটা ধ্বংস করবে।

ইন্ডিয়া আইডিয়াস কনকালেভ সভায় তিনি আরো বলেন, একটি সুন্দর পৃথিবী গড়ে তোলার জন্য অবশ্যই আমাদের ধর্মীয় রাজনীতি সম্পর্কে আরো সচেতন হতে হবে। এ ব্যাপারে কথা বলতে হবে। কিছু বিশেষ মানুষই এ পৃথিবীকে পরিবর্তন করার স্বপ্ন দেখে। মুসলমানরাও নিশ্চয়ই একদিন মানবতাবাদের আলো দ্বারা আলোকিত হবে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ভারত এ ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি সহনশীল। হাজার বছর ধরেই বিশাল ভারত সমস্ত ধর্ম-বর্ণের লোকদের নিঃসংকোচে জায়গা দিয়েছে। গৃহহীন মানুষের জন্য ভারত এক উদার আশ্রয়। ১৯৯৪ সালে দেশত্যাগ করায় এ দেশ আমাকে আশ্রয় দিয়েছে। তাই ভারতই আমার দেশ। বাংলাদেশ নয়।

বাংলাদেশে খুব শীঘ্রই উদার ধর্মীয় নিরপেক্ষতাবাদ এবং সুষ্ঠু গণতন্ত্রের বিকাশ হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তসলিমা। সম্প্রতি তিনি ধর্মীয় উগ্রমৌলবাদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও দায়ী করেন। তিনি বলেন, ভোটের রাজনীতির জন্য শেখ হাসিনা ইচ্ছে করেই বাংলাদেশে ধর্মীয় উগ্রবাদ জিইয়ে রাখতে চান। হিন্দুদের মারলেও হাসিনার রাজনীতি বহাল থাকে।  না মারলেও থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.