উদ্বোধনের অপেক্ষায় রাজশাহী বরেন্দ্র অঞ্চলের আধুনিক সার গুদাম

rrrরাজশাহী থেকে মঈন উদ্দীন: রাজশাহীতে উদ্বোধন হতে যাচ্ছে বিএডিসির অত্যাধুনিক সার গুদাম। নগরীর নওদাপাড়া এলাকায় নির্মিত এ গুদামে বরেন্দ্র অঞ্চলের জন্য সার মজুদ রাখা হবে। চার হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন এ গুদামের নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। আগামী ১ জানুয়ারী এ গুদামের উদ্বোধন করা হবে।

রাজশাহীর বিএডিসির সহকারী প্রকৌশলী (নির্মাণ) এসএম বজলুর রহমান জানান, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এই আধুনিক সার গুদামের উদ্বোধন করবেন। এ গুদাম নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৫ কোটি ৮২ লাখ টাকা। তিনি বলেন, নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। সামনের অ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণের কাজ শেষের পথে। প্রকৌশলী বজলুর রহমান বলেন, বরেন্দ্র অঞ্চলে সার সংরক্ষণের প্রয়োজনীয় গুদাম ছিল না। ফলে ভরা কৃষি মৌসুম গুলোতে এ অঞ্চলে সারের সংকট দেখা দিতো। সেইদিক বিবেচনায় রেখে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এ গুদামে মজুত করা হবে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) নন-ইউরিয়া (টিএসপি, ডিএপি, এমওপি) সার। যা বরেন্দ্র অঞ্চলের নন-ইউরিয়া সারের চাহিদা পুরণ করবে।

সংশিষ্ট সূত্র জানায়, বিএডিসি নন-ইউরিয়া সার আমদানি, সংরক্ষণ ও বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। এখন দেশের ২১টি অঞ্চলের ৪৮টি বিক্রয় কেন্দ্রের মাধ্যমে এসব সার বিতরণ হচ্ছে। ১ লাখ ৫২ হাজার ৭৬৬ মেট্রিকটন সার রংক্ষণের জন্য বর্তমানে রয়েছে ১১২টি গুদাম। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৯ লাখ ৯০ হাজার মেট্রিকটন নন-ইউরিয়া সার বিতরণ শেষ হয়েছে। সার ব্যবস্থাপনা উইং এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে বলে জানা গেছে।

সুত্র মতে, রাজশাহী অঞ্চলে নন-ইউরিয়া সারের বাফার মজুদ রক্ষায় নির্মাণ করা হয়েছে ৪ হাজার মেট্রিকটন ধারণ ক্ষমতার এই গুদাম। বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেড এটি নির্মাণ করেছে। বিএডিসি’র বিদ্যমান সার গুদামসমূহ মেরামত, পুনর্বাসন ও সার ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় এটি নির্মাণ করা হয়। নির্ধারিত সময়ের আগেই গুদাম নির্মাণ শেষ হবে বলে জানান কর্তপক্ষ।

প্রকল্পটির পরিচালক মোজাম্মেল হক বলেন, পুরো প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩৪ কোটি টাকা। এর আওতায় রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নির্মাণ করা হচ্ছে ১৪টি বড় বড় সার গুদাম। স্টিল নির্মিত এসব গুদামের একটি রাজশাহীতে নির্মাণ করা হয়েছে। যার প্রাক্কলিত ব্যয় ৫ কোটি ৮২ লাখ টাকা। তিনি আরো বলেন দিন দিন বেড়ে যাওয়া সারের চাহিদা পুরণে মজুদ বাড়াতে এসব গুদাম নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে নন ইউরিয়া সার সংকট থাকবেনা বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

বিএডিসির সহকারী প্রকৌশলী এসএম বজলুর রহমান বলেন, রাজশাহীতে বিসিআইসির গুদামে ৩শ’ মেট্রিক টন নন ইউরিয়া সার মজুদ করা যেতো। ওই গুদামটিও ভাঙাচোরা। অনেক সময় বাইরেই পড়ে থাকতো সার। এতে নষ্ট হত গুনগত মান। এছাড়া স্বল্প মজুদে কৃষকদের চাহিদাপূরণ সম্ভব হতো না। গুনগত মান বজায় রেখে সারের চাহিদা পুরণ ও সময়মত কৃষকদের মাঝে সার সরবরাহ নিশ্চিত করতেই এ গুদাম নির্মাণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.