নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিসে বেড়েছে সেবার মান (শুনুন অডিও)

 

 

 

Exif_JPEG_420

নাটোরের বাগাতিপাড়া থেকে আব্দুল মজিদ / আনোয়ার হোসেন অপু : নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিসে বেড়েছে সেবার মান, কমেছে দালালের উৎপাত, বইতে শুরু করেছে পরিবর্তনের হাওয়া। নির্মাণ করা হয়েছে অপেক্ষাগার, রেকর্ডরুম, তৈরী করা হয়েছে হেল্পডেক্স, এজলাস, চার্জার পয়েন্ট, জনসচেতনতায় দেয়া হয়েছে লিফলেট, সিটিজেন চার্টার, ফেস্টুন, সরকারী নম্বরের তালিকা, মিনি-লাইব্রেরী, ওয়েব সাইড, ফেইসবুক পেজ, অডিওবার্তা। অফিস ডেকোরেশনের পাশা-পাশি ভবনের সামনে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে তৈরী করা হয়েছে ফুলের বাগান। সর্বস্তরের সেবাগ্রহীতাদের সুবিধার জন্য রয়েছে সপ্তাহে একদিন গণশুনানী আর এই পরিবর্তনের জন্য যিনি সার্বক্ষনিক সহযোগীতা ও উৎসাহ যোগাচ্ছেন তিনি হলেন ‘বাংলা ছবি’র ফাটা কেষ্ট’ নামে পরিচিত বাগতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার খোন্দকার ফরহাদ আহমদ।

‘বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিস অনিয়ম আর অবৈধ ঘুষ লেনদেনের আখড়া’ সিরোনামে বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার খোন্দকার ফরহাদ আহমদ এর  হস্তক্ষেপে বর্তমানে উপজেলা ভূমি অফিসের চিত্র একেবারেই বদলে গেছে। ইতিপূর্বে বিভিন্ন অভিযোগ থাকলেও বর্তমানে একটি সুশৃঙ্খল অফিসে পরিণত হয়েছে বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিস। উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে প্রতিদিন শতশত মানুষ জমি-জমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে উপজেলা ভূমি অফিসে আসতে শুরু করেছেন। দীর্ঘ সাত বছর এসিল্যান্ড না থাকায় আশানুরুপ সেবা পাওয়া যায়নি এই দপ্তর থেকে। তবে সম্প্রতি ২২ অক্টোবর বাগাতিপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা খানম যোগদানের পর থেকে বেড়েছে সেবার মান। সরকারী গুরুত্বপূর্ণ নথি সংরক্ষণের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে রেকর্ড রুম।

Exif_JPEG_420

সেবা প্রার্থীদের সুবিধার জন্য তৈরি করা হয়েছে হেল্পডেক্স। কার্যাদি সম্পূর্ণ করার জন্য রয়েছে এজলাস। সেবা প্রার্থীদের আহবানের জন্য সাউন্ড সিস্টেম ও সিরিয়াল ঠিক রাখতে টোকন এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। জনস্বার্থে দেয়া হয়েছে মোবাইল চার্জার পয়েন্ট। সচেতনতায় সিটিজেন চার্টার, ফেস্টুন ও মোবাইল নম্বরের তালিকা সাটানো হয়েছে। ভূমি আইন সংক্রান্ত বিভিন্ন বই দিয়ে করা হয়েছে মিনি-লাইব্রেরী। htt://aclandbagatipara.gov.bd/ নামে একটি ওয়েব সাইড ও aciland bagatipara  নামে একটি ফেসবুক পেজ তৈরী করা হয়েছে। সেবা গ্রহীতাগণ শান্তিতে অপেক্ষা করতে পারার জন্য নির্মাণ করা হয়েছে ‘ঠিকানা’ নামক অপেক্ষাগার। সেখানে দেয়া হয়েছে ভূমি অফিসের সকল সেবা সম্পর্কিত তথ্য জানার জন্য একটি অডিওবার্তা। অফিস চলাকালীন সময়ে অডিওবার্তা সার্বক্ষনিক চালু থাকে। যা জনসচেতনতায় অনেক সহায়ক।

অফিসের আশপাশে এক সময় দালালদের আনাগুনা ব্যপকভাবে থাকলেও বর্তমানে তা একবারেই শূন্যের কোটায়। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট যোগদানের পরে একজন দালালকে জরিমানা করার পর থেকে কমেছে দালালদের উৎপাত। অফিস সাজানোর সাথে সাথে ভবনের সামনে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে নিরাপত্তা প্রাচীরের ভিতরে “বনলতা” নামে ফুলের বাগান তৈরী করা হয়েছে। সেখানে লাগানো হয়েছে গ্যাডিওলাস, রজনীগন্ধা, ডালিয়া, ইনানগাদা সহ বিভিন্ন জাতের ফুলের গাছ।

জরুরী প্রয়োজনে যে কোন দিন সেবা পাওয়ার নিশ্চয়তা থাকলেও গণশুনানীর জন্য মঙ্গলবার নির্ধারিত দিন রাখা হয়েছে। উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার থেকে ২০ টাকার কোর্ট ফি লাগানোর মাধ্যমে নামজারী বা মিস কেসের সমস্ত পেপার্স পূরণ করে নেয়া যাবে বলে জনগনকে সচেতন করা হয়। আরো জানা যায়, সেবা প্রার্থীগণ কবে ইউনিয়ন ভূমি অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে যাবেন এবং কোন তারিখে উপজেলা ভূমি অফিসে যোগাযোগ করবেন সে বিষয়ে নামজারী করনের উপর দেওয়া হয়েছে বিস্তারিত তথ্য।

উপজেলা ভূমি অফিসের সেবার মান নিয়ে ইতিপূর্বে অভিযোগকারীদের মধ্যে জামনগ ইউনিয়নের মুঞ্জুর রহমান মিঠু জানান, ‘বর্তমান ইউএনও ও  এসিল্যান্ড স্যার যোগদানের পূর্বে আমাদের জমি সংক্রান্ত প্রয়োজনে দিনের পর দিন ঘুরতে হতো। কিন্তু অফিসের বর্তমান কার্যক্রম সম্পূর্ণ জনবান্ধব। আশা করি উপজেলা সহ ইউনিয়ন ভূমি অফিস গুলোর সেবার মান ভবিষ্যতে আরো বৃদ্ধি পাবে।’

বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিসকে আগামীতে আরো জনবান্ধব হিসাবে গড়ে তুলতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা খানম বলেন, ‘আমি যোগদানের পর নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাাড়া) আসনের সংসদ সদস্য মোঃ আবুল কালাম ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার খোন্দকার ফরহাদ আহমদ স্যারের সহযোগীতায় বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিসকে দৃষ্টি মনোরম পরিবেশ তৈরী করার চেষ্টা করছি। তবে জনগণের সেবার মান আরো উন্নত করতে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন।

আগামীতে যথাযথ সরকারী বরাদ্দ পাওয়া সাপেক্ষে ডিজিটাল হাজিরা, ইন্টারকম ও ডিজিটাল নোটিশ বোর্ড, খাস জমির ডাটাবেজ তৈরি করার মাধ্যমে তা উদ্ধার করা, ই-সেবা নিশ্চিত করতে ভূমি অফিসের সকল কার্যক্রম নিয়ে সচেতনতা মূলক একটি নাটিকা তৈরী করে তা জনস্বার্থে প্রচারের ব্যবস্থা করা হবে। সর্বস্তরের জনসাধারণের সহযোগীতায় বাগাতিপাড়া উপজেলা ভূমি অফিসকে একটি মডেল ভূমি অফিস হিসাবে গড়ে তুলতে চাই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.