গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে সাঁওতালদের পক্ষে মামলা দায়ের

03গাইবান্ধা থেকে ফারুক হোসেন: এমপি ইউএনও কে আসামী করে সাঁওতালদের পক্ষে মামলা দায়েরকারী বাদীর ঠিকানা ভুয়া বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হরিনমারী নতুন পল্লী (ইক্ষু খামারের ভিতর) ঠিকানা উল্লেখ করে মহলে হেমরমের ছেলে থোমাস হেমরম শনিবার গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি এজাহার দায়ের করে।

এই এজাহারে এমপি ইউএনও সহ ৩৩ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ৫০০/৬০০ জন কে অজ্ঞাত আসামী দেখিয়ে মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু সরেজমিনে হরিনমারীতে গিয়ে থোমাস হেমরম এই নামের কোন লোকের বসতি দেখা যায়নি। হরিনমারী একটি বিশাল আকারের আবাদী জমির ভুখন্ড। এজাহারে দেয়া মোবাইল নম্বরও বন্ধ। রবিবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মামলায় উল্লেখ করা নম্বরে বহুবার ফোন দেয়া হলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, সাঁওতালদের পক্ষে মামলা দায়েরকারী থোমাস হেমরমের নিবাস উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়নের রুজরুক বেড় আরজী গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের মহলে হেমরমের ছেলে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সরবরাহ করা ভোটার তালিকায় তার নাম রয়েছে বুজরুক বেড় আরজী গ্রামের পুরুষ ভোটার তালিকার ০৩৮ নম্বর সিরিয়ালে। তার ভোটার নং ৩২০৮২৫৬৪৮১০৬। পেশা উল্লেখ আছে কৃষক হিসেবে। আর জন্ম তারিখ ১৯৭০ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ৯ তারিখ। সারা দেশে আলোচিত গোবিন্দগঞ্জের কথিত সাঁওতাল উচ্ছেদের মত স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে তিনি মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারদলীয় এমপি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ অনেক প্রভাবশালীকে আসামী করা হয়। কিন্তু বাদী ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে মামলা দায়ের করে। থোমাস হেমরমের আসল ঠিকানা উল্লেখ না করায় অনেকেই অবাক হয়েছে। এমন স্পর্শকাতর বিষয়  নিয়ে মামলা দায়ের পূর্বে সঠিক ঠিকানা ব্যবহার করা উচিত ছিলো বলে উপজেলার সচেতন নাগরিকরা মত প্রকাশ করেন।
-ফারুক হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.