বগুড়ার শেরপুরে শান্তিপূর্ন ভাবে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

nannu-1 আব্দুল খালেক নান্নু/আব্দুল ওয়াদুদ: সারা দেশের ন্যায় বগুড়ার শেরপুরে শুরু হয়েছে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট  (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট  (জেডিসি) পরীক্ষা। শেরপুর উপজেলায় মোট ৬টি কেন্দ্রে ৫ হাজার ৮৭ জন ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে ১শ ১৩ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এদের মধ্যে ৬৪ জন ছাত্রী ও ৫১ জন ছাত্র রয়েছে বলে কেন্দ্র সচিবরা জানান। তারা আরো জানান, অনুপস্থিত ছাত্রীদের প্রায় সবারই বিয়ে হয়ে যাবার কারনে তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহন থেকে বিরত রয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, শেরপুর উপজেলায় ৪টি কেন্দ্রে জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কেন্দ্র গুলো হলো শেরপুর ডিজে হাইস্কুল। এখানে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ হাজার ৫শ ৬৭ জন, এরমধ্যে ২৮জন (১৭ জন ছাত্রী) পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত রয়েছে। মজিবর রহমান মজনু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ হাজার ১শ ২১জন। এরমধ্যে অনুপস্থিত ০৫ (১জন ছাত্রী) জন।

akramসীমাবাড়ী এস আর বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ হাজার ৩৬ জন। এরমধ্যে অনুপস্থিত ১৮ (ছাত্রী ১০) জন। এ ছাড়াও জেডিসি পরীক্ষায় শেরপুর শহীদিয়া কামিল মাদরাসা কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ৩শ ৫৪ জনের মধ্যে অনুপস্থিত ছিল ১৭ জন। এরমধ্যে ১১ জন ছাত্রী। ধনকুন্ডি আয়েশা মওলাবক্স দাখিল মাদরাসা কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ৪শ ১০ জনের মধ্যে ২৮ জন অনুপস্থিত ছিল। এরমধ্যে ১৩ জন ছাত্রী।

উলিপুর আমেরিয়া সমতুল্ল্যাহ মহিলা ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ৫শ ৯৯ জনের মধ্যে অনুপস্থিত ছিল ১৭ জন। এরমধ্যে ছাত্রী ১২ জন। এ ছাড়াও একই দিনে এসএসসি ভোকেশনাল নবম শ্রেনী শালফা টেকনিক্যাল এন্ড বিএম কলেজ কেন্দ্রে ও দাখিল ভোকেশনাল নবম শ্রেনীর পরীক্ষা শেরপুর পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ উপজেলায় অনুপস্থিতিদের মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় খোঁজ নিলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা জানান, ওই সকল ছাত্রীরা বাল্য বিয়ের কারনে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে পারেনি।

nannu-2 মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় উপজেলার সীমাবাড়ী এস আর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে  যাওয়া হলে দেখা যায় এবারের পরীক্ষার দৃশ্ব। পরীক্ষার হল যেন সব্দহীন, কোমলমোতী পরীক্ষার্থীরা মনোযোগ সহকারে নকল মুক্ত পরিবেশে পরীক্ষা দিচ্ছে। কয়েকটি হল ঘুরে ঘুরে এমন চিত্র যেন চোখে পড়ার মত। পরীক্ষা কেন্দ্রের ভিতরে ও বাহিরে পুলিশের কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা বাহিরে নিরাপদ স্থানে অবস্থান করছে।

আর প্রতিটি হল রুমের দায়িত্বরত শিক্ষকরা পরীক্ষার্থীদের মনিটনিং করছে। প্রথম দিনের এ পরীক্ষা শান্তিপুর্নভাবে পালিত হয়েছে। এই কেন্দ্র পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ইনেষ্টাক্টর মোঃ শামছুল আলম, অত্র স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আতিকুর রহমান, স্কুল কমিটির সভাপতি আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল হালিম সহ শিক্ষকমন্ডলী।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.