1. [email protected] : AK Nannu : AK Nannu
  2. [email protected] : arifulweb :
  3. [email protected] : F Shahjahan : F Shahjahan
  4. [email protected] : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  5. [email protected] : Arif Prodhan : Arif Prodhan
  6. [email protected] : Farjana Sraboni : Farjana Sraboni
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫২ অপরাহ্ন

বিয়ের আসর ছেড়ে জিহাদের মাঠে বাংলাদেশের নাবিলা

  • Update Time : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪২ Time View

এশিয়ানবার্তা নিউজডেস্ক  : বাংলাদেশের সেই সহজ সরল নাবিলা এখন আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় এক ভয়ংকর জঙ্গির নাম।আল কায়দার শাখা সংগঠন আনসার আল ইসলামে যোগ দেয়া সেই জোবাইদা সিদ্দিকা নাবিলা এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে।

বাংলাদেশের অন্যসব তরুণীদের  মতো চাকরি বা ঘরকন্না করার কথা ভাবত না সে।ফিদায়েঁ জঙ্গি হয়ে ওঠার স্বপ্নে বিভোর ছিল নাবিলা। সেই রক্তাক্ত পথে পা দিয়ে বাংলাদেশে আল কায়দার শাখা সংগঠন আনসার আল ইসলামে যোগ দেয় জোবাইদা সিদ্দিকা নাবিলা।

নাবিলা বিয়ের পিঁড়ি ছেড়ে চলে যান জিহাদের ময়দানে। দেশের সীমানা পেরিয়ে  সুদুর সিরিয়ায় গিয়ে তিনি নাম লেখান জঙ্গিদের খাতায়।

বাংলাদেশের মেয়ে নাবিলা।সহজ সরল আর দশজন মেয়ের মতই ছিল তার স্বাভাবিক জীবন।বিয়ের বয়সও হয়েছিল। বিয়ের কথাবার্তাও চলছিল।বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাবেন এমন সময়েই তার জীবনের গতি পাল্টে যায়। সেইসঙ্গে ঘুরে যায় ভাগ্যের চাকাও।

আদালতে ১৬৪ ধারায় নাবিলা ভয়ংকর জঙ্গি হওয়ার জবানবন্দি দিয়েছেন।গত বুধবার মহানগর হাকিম শাহিনুর ইসলাম তার খাস কামরায় নাবিলার জবানবন্দি নেন বলে পুলিশের প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার মহম্মদ জাফর হোসেন । তিনি জানান,মাত্র ১৯ বছর বয়সের জোবায়দা সিদ্দিকা নাবিলা আনসার আল ইসলামের সঙ্গে সে জড়িয়ে পড়েছিল। আনসার আল ইসলামে সেই প্রথম নারী সদস্য। এই জঙ্গি সংগঠনটিতে এর আগে কোনও মহিলা সদস্য ছিল বলে জানা যায়নি। এই প্রথম এই সংগঠনের কোনও নারী সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আনসার আল ইসলামের  মিডিয়া শাখায় প্রচার-প্রচারণার দায়িত্ব পালন করত নাবিলা। সামরিক শাখার সঙ্গেও তার যোগাযোগ ছিল। সে দেশ ও দেশের বাইরে যে কোনও সময় ‘জিহাদ’ করার জন্য প্রস্তুত ছিল।

গত ২৬ আগস্ট রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার হওয়র পর জিজ্ঞাসাবাদে  নাবিলা জানায় ২০২০ সালের প্রথম দিকে নাম-পরিচয় গোপন করে ছদ্মনামে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলেন। পরে আনসার আল ইসলামের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ ‘তিতুমীর মিডিয়ায়’ যুক্ত হয়। তাদের উগ্রবাদী মতাদর্শ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য নাবিলা ফেসবুক, টেলিগ্রাম ও ‘Chirpwire’ নামের অনলাইন প্লাটফর্মে ছদ্মনামে অ্যাকাউন্ট খুলে জিহাদের তালিম নিতে থাকেন।

অনলাইনের সেই চ্যানেলে আইডি ও আগ্নেয়াস্ত্র তৈরি করা এবং বিভিন্ন হামলায় কৌশলগত বিষয়ে ভিডিও এবং ফাইল শেয়ার করত সে।

সাম্প্রতিক সময়ে যখন তার বিয়ের কথাবার্তা চলছিল,তখন সে পাত্র পক্ষকে জানায় যে, জিহাদের ময়দানে যেকোন সময় ডাক এলে সে সামনের সারিতে থাকবে। এমনকি শহীদি মৃত্যু এলেও পিছু হটবে না । কাজেই পাত্র এরূপ মানসিকতার না হলে সে তাকে বিয়ে করবে না।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2016-2020 asianbarta24.com

Developed By Pigeon Soft