রাজশাহীর পদ্মায় চামড়া ফেলার তদন্ত!


মঈন উদ্দীন: বিক্রি করতে না পেরে রাজশাহীর পদ্মায় কোরবানির চামড়া ফেলে দেয়ার
তদন্ত করছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ঈদের পর দিন সাখাওয়াত হোসেন নামে এক
মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ী নগরীর বুলনপুর এলাকায় পদ্মা নদীতে এক ভ্যান ছাগলের
চামড়া ফেলে দেন। সেই ছবি এবং ভিডিও সামাজিক যোগাযোগসহ
পত্রিকাগুলোতে ভাইরাল হয়ে যায়। বিষয়টি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নজরে আসলে
রাজশাহী জেলা প্রশাসনকে তদন্তের নির্দেশ দেয়।
বিষয়টি ওই দিনই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নজরে আসে। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে
বিষয়টি তদন্তের জন্য রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ
শরিফুল হককে দায়িত্ব দেয়া হয়। তদন্তকারী কর্মকর্তা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের একটি
টিমকে সঙ্গে নিয়ে বিষয়টির সরেজমিন তদন্ত করেন। পরে সেদিনই বাণিজ্য
মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শরিফুল হক বলেন, যিনি চামড়া নদীতে ফেলেছেন তিনি
রাজশাহীর একজন মৌসুমি ব্যবসায়ী। চামড়া কেনাবেচা কিংবা সংরক্ষণে তার
অভিজ্ঞতা নেই। তিনি ছাগলের চামড়া কেনার পর নাটোর ও রাজশাহীতে বিক্রির চেষ্টা
করেন। কিন্তু বিক্রি করতে পারেননি, সংরক্ষণ করতেও জানেননি। তাই চামড়ায় পচন
ধরে। এ কারণে তিনি নদীতে ফেলে দেন। তিনি আরও জানান, তার কাছে মনে হয়েছে
উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে চামড়া নদীতে ফেলা হয়েছে। সে কারণে ছবি এবং ভিডিও

ছড়িয়ে পড়েছে। তাই তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য
পরিবেশ অধিদপ্তরকে বলা হয়েছে।
পরিবেশ অধিদপ্তরের রাজশাহীর উপপরিচালক মোহাম্মদ মনির হোসেন বলেন, পরিবেশ
আইন অনুযায়ী, কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হলে দূষণ আসলেই হয়েছে কি না
সেটা আগে দেখতে হবে। সে জন্য নদীর যে স্থানে চামড়া ফেলা হয়েছে সেখান
থেকে তিন বোতল পানি সংগ্রহ করা হয়েছে। সেই পানি পরীক্ষার জন্য বুধবার
বগুড়ার ল্যাবে পাঠানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.