করোনা নেগেটিভ ডেডিকেটেড হাসপাতাল এখন সময়ের দাবি

হাকীম এফ শাহজাহান < এশিয়ানবার্ত ডেস্ক > শুধু করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল দিয়ে তো মানুষ বাঁচানো যাবে না। লাগবে নন করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল। সাধারন সর্দি জ্বর কাশি শ্বাসকষ্টের রোগীদেরও তো বাঁচাতে হবে। সেই ব্যবস্থা তো কোথাও নাই।

এজন্য প্রয়োজন প্রতিটি জেলা উপজেলার বেসরকারী হাসপাতাল ক্লিনিকগুলোকে নন করোনা ডেডিকেটেড ক্লিনিক হাসপাতালে পরিনত করা। যেখানে কমপক্ষে ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ ১০টি বেড প্রস্তুত থাকবে। এটা বাস্তবায়নে লাগবে সামাজিক উদ্যোগ ,রাজনৈতিক সদিচ্ছা। লাগবে সব দলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা।

করোনা নেগেটিভ শ্বাসকষ্টের অনেক রোগী আছেন । শুধু বয়স্করাই নন। এমন অনেক শিশু,গর্ভবতী এবং প্রসুতি মা আছেন যারা শ্বাসকষ্টে ভুগছেন।

করোনা নেগেটিভ এমনসব শ্বাসকষ্টের রোগীরা এখন কোথাও চিকিৎসা পাচ্ছেন না। এঅবস্থায় তাদের মৃত্যুঝুঁকি বাড়ছে। তাদের জন্য কিছু একটা করার জরুরী সময় এখনই ।

আগামীতে এমন নন করোনা শ্বাসকষ্টের রোগীর সংখ্যা আরো বাড়বে। শীতকালে করোনা নেগেটিভ শ্বাসকষ্টের প্রচুর রোগী দেখা দিবে।

এখন সময়টা তাদের জন্য ইমার্জেন্সি অীক্সজেন সাপোর্টসহ চিকিৎসা খুবই প্রয়োজন হবে। কিন্তু কোন হাসপাতালেই তো তাদের চিকিৎসা হচ্ছে না। এখন তাদের খুবই দু:সময়।

কেননা তাদের ইমার্জেন্সি অক্সিজেন সাপোর্ট লাগে। কিন্তু এখন তো সর্দিকাশি শ্বাসকষ্ট থাকলেই তাকে পাঠানো হচ্ছে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে।

দেখা গেলো তার করোনা নেগোটিভ হওয়ার কারনে সেখানেও তিনি চিকিৎসা পেলেন না। এখন যাবেন কোথায় ?

কারন শ্বাসকষ্ট মানেই তার ধারে কাছে কেউ যাচ্ছে না এবং তাকে সাধারন বেকসরকারি ক্লিনিক হাসপাতালগুলোতে ভর্তি নিচ্ছে না। এঅবস্থায় যাদের ইমার্জেন্সি অক্সিজেন সাপোর্ট এবং চিকিৎসা লাগবে তারা কোথায় যাবেন ? কীভাবে বাঁচবেন ?

এমনসব নন করোনা শ্বাসকষ্টের রোগীদের জন্য জেলা শহরের মহল্লা ভিত্তিক এবং উপজেলায় কমপক্ষে একটি করো করোনা নেগেটিভ ডেডিকেটেড হাসপাতাল গড়ে তোলা এখন সময়ের দাবি।
আসুন আমার আপনার মহল্লায় এরকম একটি বেসরকারী ক্লিনিক হাসপাতাল বেছে নিয়ে সেটাকে সামস্টিক উদ্যোগের মাধ্যমে করোনা নেগেটিভ ডেডিকেটেড হাসপাতাল বানিয়ে ফেলি।

যেখানে ১০টা অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ ১০টি বেড প্রস্তুত করি যাতে করোনা নেগেটিভ শ্বঅসকষ্টের রোগীদেও ইমার্জেন্সি চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা যায়।

আসুন আমরা আমাদের এলাকায় এরকম একতটি হাসপাতাল বেছে নিই যেখানে করোনা নেগেটিভ রোগীদের ইমার্জেন্সি চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে। এরপর ১০/২০ জন দানশীল ব্যাক্তি খুঁজে বের করি যারা সেই ১০ বেডের জন্য ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং শ্বাসকষ্টে ভোগা নারী শিশু বৃদ্ধ গর্ভবতী প্রসুতি মায়েদের জরুরী চিকিৎসার সব সরঞ্জাম কিনতে সহায়তা করতে পারেন।

এভাবে প্রতিটি উপজেলায় এবং জেলা শহরের পৌরসভা ভিত্তিক একটি কওে করোনা নেগেটিভ ডেডিকেটেড হাসপাতাল প্রস্তুত করা এখন খুবই জরুরী।

আসুন, আমরা আমাদেও নিজ নিজ এলাকার বেসরকারি ক্লিনিক হাসপাতালের মালিক,চিকিৎসক এবং এলাকার স্বেচ্ছাসেবি ভাইবোনদের নিয়ে এরকম একটি করোনা নেগেটিভ ডেডিকেটেড হাসপাতাল প্রস্তুত করে ফেলি।

যেখানে করোনা নেগেটিভ শ্বাসকষ্টে ভোগা নারী শিশু বৃদ্ধ গর্ভবতী ও প্রসুতি মায়েরা বাঁচার পথ পাবেন ইনশাআল্লাহ।

আপনার একটু সহানুভুতি,একটু উদ্যোগই বাঁচাতে পারে বিপদগ্রস্থ হাজারো মানুষের প্রাণ।

হাকীম এফ শাহজাহান

ডিইউএমএস

হামদর্দ ইউনানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল,বগুড়া

,২৬.০৬.২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.