ভারতে নিষিদ্ধ ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট

04কলকাতা প্রতিনিধি: মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে ভারতে নিষিদ্ধ হয়েছে ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জাতির উদ্দেশে এক ভাষণে এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন। জালনোট কালোটাকা নিয়ে দুর্নীতি রুখতেই এই সিদ্ধান্ত নেয় ভারত সরকার। পুরনো নোটের বদলে এবার ৫০০ টাকার নতুন নোট বাজারে আনা হচ্ছে। এর পাশাপাশি ২০০০ টাকার নোটও বাজারে আনছে সরকার।

তবে পুরনো ৫০০ এবং ১০০০ টাকার নোট পরিবর্তন করার জন্য সবার হাতে ৫০ দিন সময় থাকছে। চলতি মাসের ১০ তারিখ থেকে ডিসেম্বরের ৩০ পর্যন্ত আপনার নিকটবর্তী ব্যাঙ্ক, পোস্ট অফিস বা সাব পোস্ট অফিস থেকে পালটানো যাবে পুরনো নোট। তবে সেক্ষেত্রে সকলের পরিচয়পত্র নিয়ে যাওয়া বাধ্যতামূলক। পাশাপাশি একবারে ৪০০০-এর বেশি টাকার পুরনো নোট পালটানো যাবে না। তবে চেক বা ডিম্যান্ড ড্রাফটের ক্ষেত্রে কোনও টাকার অঙ্ক বেধে দেওয়া হয়নি।

যারা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নোট বদলাতে পারবেন না, ২০১৭-র ৩১ মার্চের মধ্যে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নির্ধারিত কোনও কেন্দ্রে গিয়ে নোট বদলাতে পারবেন।

05এই ঘোষণার পরই গোটা কলকাতা জুড়ে এটিএম থেকে টাকা তোলার জন্য কার্যত হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত দীর্ঘ লাইন ছিল এটিএম কাউন্টারগুলির বাইরে। কোনও কোনও এটিএমে ১০০ টাকা শেষ হয়ে যাওয়ায় শাটার বন্ধ করে দেওয়া হয়। লাইনের লোকজন অন্য এটিএমের সন্ধানে হাটাঁ লাগান।

প্রধানমন্ত্রীর এহেন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এটি একটি নির্দয় এবং অপরিণত সিদ্ধান্ত। দুর্নীতি দমনের নামে যা সাধারণ মানুষের উপরে আঘাতের সামিল। প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাই, আমার গরিব ভাইবোনেরা যাঁদের প্রতিদিনের কষ্টার্জিত উপার্জন হল ৫০০ টাকার নোট, তাঁরা কীভাবে আটা, চাল কিনবেন?

অনেকেই যেমন প্রশংসা করেছেন, আবার কেউ কেউ জানতে চেয়েছেন, ওই পদক্ষেপ আদৌ দুর্নীতি দমন করবে কি না। সন্ত্রাসবাদীদের হাতে জালনোটের জোগান এমন পদক্ষেপ বন্ধ হবে কি না, সেই প্রশ্নও তুলেছেন কেউ কেউ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.