অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন হারাম

ফকীর শাহ < এশিয়ানবার্তা ডেস্ক > করোনা প্রতিরোধে যখন আশা জাগাচ্ছে অক্সফোর্ডের সম্ভাব্য করোনা ভ্যাকসিন, ঠিক তখনই এই ভ্যাকসিনকে মুসলমানদের জন্য হারাম ঘোষণা করলেন অস্ট্রেলিয়ার একজন আলেম।

এর আগে খৃস্টান ক্যাথলিক আর্চবিশপ এই ভ্যাকসিনের বিষয়ে জানিয়ে ছিলেন। তার আপত্তির পর এবার এক ইমাম জানালেন, অক্সফোর্ডের করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিন ‘হারাম’ বা নিষিদ্ধ । অস্ট্রেলিয়ার ইমাম সুফিয়ান খলিফা মুসলিমদের এটি গ্রহণ করতে নিষেধ করেছেন।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিও পোস্ট করে সুফিয়ান দাবি করেন, সত্তরের দশকে গবেষণাগারে গর্ভপাত হওয়া একটি শিশুর ভ্রূণ কোষ নিয়ে করোনার সম্ভাব্য টিকা তৈরি করেছে অক্সফোর্ড ও ব্রিটিশ-সুইডিশ সংস্থা অ্যাস্ট্রোজেনেকা।

সুফিয়ান বলেন, ‘যে মুসলিম সংগঠনগুলো এই ভ্যাকসিনের ব্যবহারকে সমর্থন করছে, তাদের লজ্জা হওয়া উচিত। এই ফতোয়ায় যে ইমামরা সই করছেন, তাদেরও ধিক্কার।’

তার আগে এক উচ্চপদস্থ ক্যাথলিক আর্চবিশপ জানান, অ্যাস্ট্রোজেনেকার সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া যে ভ্যাকসিন উৎপাদনের চুক্তি করেছে, তাতে তিনি ‘অত্যন্ত উদ্বিগ্ন’। শিশুর ভ্রূণ কোষ ব্যবহার করে সেই ‘ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট’ তৈরি করা হয়েছে। যা খ্রিস্টানদের ক্ষেত্রে ‘নৈতিক সংকট’ তৈরি করবে।

‘ভ্রূণ কোষ ব্যবহার করে টিকা উৎপাদনের’ বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনকে চিঠিও লিখেছেন সিডনির আর্চবিশপ অ্যান্থনি ফিশার। চিঠিতে সই করেছেন অ্যাঙ্গলিকান এবং গ্রিক অর্থডক্স চার্চের যাজকরাও।

আর ক্যাথলিক সংগঠনের আপত্তির প্রসঙ্গ উত্থাপন করে ইমাম সুফিয়ান বলেন, ‘ক্যাথলিকরা এটার (করোনার সম্ভাব্য টিকার) বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছেন, কারণ তাঁরা স্পষ্টত জানেন যে এটা হারাম, এটা আইনবিরোধী। তার পরিবর্তে আপনারা (অস্ট্রেলিয়ার মুসলিম সংগঠনগুলোর সদস্য) সরকারের পাশে দাঁড়িয়েছেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.