করোনায় গৃহবন্দী স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ায় সংসার ভাঙ্গছে বেশি

ফকীর শাহ < এশিয়ানবার্তা ডেস্ক > অফিস আদালত বন্ধ। বাচ্চাদের স্কুলও বন্ধ। শপিং-ডেটিংও চলছে না। বিউটি পার্লারেও যাওয়া হচ্ছে না। তাই স্বামী স্ত্রী উভয়ই বাড়িতে একসঙ্গে থাকতে হচ্ছে। বিষয়টা একেবারে একঘেঁয়ে নিরামিষ। দিনের পর দিন এভাবে থাকায় স্ত্রীর ঘ্যানর ঘ্যানর যেমন স্বামীর সহ্য হচ্ছে না,তেমনি স্বামীর প্যান-প্যানানীও সইতে পারছে না স্ত্রীরা। ঝগড়াটে বউদের অবস্থা তো আরো সোচনীয়। এরফলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ছোট খাট বিষয় নিয়ে ঝগড়াঝাটি লেগে যাচ্ছে। আর সেই কারনে সংসার ভাঙ্গার ঘটনাও বাড়ছে জাপানে।

জাপানের সরকার প্রধান শিনজো আবে দেশের করোনা আক্রান্তর সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ার ফলে সার্বিক অবস্থার কথা চিন্তা করে জাপানের কোথাও লকডাউন ঘোষণা না করলেও সর্বত্র জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেন। এ কারণে সচেতন জাপানি সবাই প্রায় ঘরে অবস্থান করছে।

এসময় হঠাৎ করে স্বামীদের ঘরে লম্বা সময় থাকার কারণে দেখা যাচ্ছে স্বামী-স্ত্রী এবং ছেলে মেয়েদের মধ্যে নানা কারণে নিয়মিত ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি বা নতুন নতুন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে তাদের স্ট্রেস বাড়ছে। যে কারণে অনেকেই বিভিন্ন সামাজিক সাইটের মাধ্যমে অন্যদের সাথে এ নিয়ে শেয়ার করছে বা পরামর্শ করছে। যার পরিমান ক্রমেই বাড়ছে। এদের অনেকেই করোনা ভাইরাসের ফলে উদ্ভোত সমস্যার কারণে নিজেদের মধ্যে ডিভোর্স দেবার কথা ভবাছে বলে জানায়।

যেহেতু এদের অধিকাংশ করোনা ভাইরাসের কারণেই ডিভোর্সের কথা ভাবছে এবং ক্রমেই এর সংখ্যা বাড়ছ তাই এর নাম দেওয়া হয়েছে করোনা রিকোন বা করোনা ডিভোর্স। অনেকেই এ নিয়ে আদালতের স্বরণাপন্য হলেও আদালত এ বিষয়ে কোন নিস্পত্তির সিদ্ধান্ত দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

যেসকল কারণে জাপানি কাপলরা এমন সিদ্ধান্ত নিতে চিন্তা করছে তার মধ্যে সনাক্ত করণ কারণ গুলো হচ্ছে, ১, বাইরে না যাবার কারণে স্বামী হঠাৎ করেই ঘরে থাকার ফলে টুকিটাকি কথার কাটাকাটির ফলে স্বামী স্ত্রীতে একে অপরের ভুল ধরা নিয়ে বিরোধ হচ্ছে, ২, বাসায় স্বামী স্ত্রী এবং ছেলে মেয়েদের সাথে একসাথে থাকার ফলে মন খুলে অন্যদের সাথে কথা বলতে না পারার কারণেও দেখা যাচ্ছে ঝামেলা শুরু হচ্ছে, ৩, করোনার কারণে একে অপরের সাথে চিন্তার ভিন্নতা দেখা যায়, এ নিয়ে কথা বলতে গেলেও ঝামেলা শুরু হচ্ছে, ৪, ছেলে মেয়েদের সাথে ঠিক ভাবে মেলা মেশা করতে না পেরেও শুরু হচ্ছে এক ধরনের ঝামেলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.