1. [email protected] : AK Nannu : AK Nannu
  2. [email protected] : arifulweb :
  3. [email protected] : F Shahjahan : F Shahjahan
  4. [email protected] : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  5. [email protected] : Arif Prodhan : Arif Prodhan
  6. [email protected] : Farjana Sraboni : Farjana Sraboni
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৩১ অপরাহ্ন

ইউমেন্স ইউনিভার্সিটির জার্নাালিজম এন্ড মিডিয়া ষ্টাডিজ বিভাগের যাত্রা

  • Update Time : শনিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৬
  • ৪৬ Time View

05 স্বর্ণা বারী ঢাকা: দেশে বর্তমানে ৩টি সরকারিসহ ৪৪টি টিভি চ্যানেল, ১টি সরকারীসহ ২৯টি রেডিও ষ্টেশন, ৩২টি কমিউনিটি রেডিও, সহ-রাধিক সংবাদপত্র এবং অগনিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল, রেডিও ও টেলিভিশন রয়েছে। অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে আরো নতুন নতুন অনেক ইলেকট্রনিক ও অনলাইন টেলিভিশন, রেডিও, সংবাদপত্র ও নিউজ পোর্টাল। এসব মিডিয়ায় রয়েছে এডিটর, সাব এডিটর, নিউজরুম এডিটর, ন্যাশনাল ডেক্স এডিটর, রিপোর্টার, নিউজ প্রেজেন্টার, ভিডিও এডিটর, ওয়েব ডিজাইনারসহ দক্ষ গণমাধ্যম কর্মীর ব্যাপক চাহিদা।

এক্ষেত্রে পুরুষদের চেয়ে নারীরা অনেক পিছিয়ে রয়েছে। গনমাধ্যমের চাহিদা বিবেচনায় দক্ষ নারী গণমাধ্যম কর্মী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে দেশে নারী শিক্ষার অন্যতম ও একমাত্র বিদ্যাপীঠ “ সেন্ট্রাল ইউমেন্স ইউনিভার্সিটি” ২০১৬ খ্রীষ্টাব্দ থেকে চালু করেছে জার্নাালিজম এন্ড মিডিয়া ষ্টাডিজ বিভাগ। এ বিভাগে চার বছর মেয়াদী অনার্স কোর্স এবং এক বছর মেয়াদী মাষ্টার্স কোর্সে অধ্যায়নের মাধ্যমে যে কোন শিক্ষার্থী সহজেই গড়তে পারেন গণমাধ্যমে নিজেদের ক্যারিয়ার।

এখানে শিক্ষার্থীদের শুধূ হাতে কলমেই শেখানো হয়না; জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল ‘দীপ্ত টিভি’-তে রয়েছে ইন্টার্ণশীপ করার সুযোগ। এই বিভাগে অধ্যায়নের মাধ্যমে সহজেই আতস্থ করতে পারবেন টেলিভিশন সংবাদ ও অনুষ্ঠান উপস্থাপনা, সাংবাদিকতা, রেডিও জকি, ক্যামেরা পরিচালনা, ওয়েব ডিজাইন, ফটোগ্রাফি, ভিডিওগ্রাফি, সিনেমাটোগ্রাফি, স্ক্রিপ্ট লেখার কৌশলসহ গণমাধ্যম বিষয়ক নানা ফিচার। এখানে শুধুমাত্র অধ্যাবসায় ও অধ্যায়নের মাধ্যমে আপনিও হয়ে উঠতে পারেন একজন চলচ্চিত্র বোদ্ধা, দক্ষ সাংবাদিক, জনপ্রিয় এ্যাংকর বা রেডিও জকি, প্রফেশনাল ক্যামেরাম্যান, ভিডিওগ্রাফার বা ফটোগ্রাফার কিংবা স্ক্রিপ্ট রাইটার।

06শুধূ তাই নয়; এই বিভাগে অধ্যায়ন শেষে আপনি সুযোগ পেতে পারেন বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের জনসংযোগ সেল, বিজ্ঞাপন সংস্থা ও নিউজ এজেন্সিতে। এছাড়াও রয়েছে দেশি-বিদেশি এনজিও ও আন্তর্জাতিক সংস্থায় কমিউনিকেশন অফিসার, মিডিয়া মনিটর, মিডিয়া গবেষক এবং বিভিন্ন ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষক হিসেবে কর্মসংস্থানের অবারিত সুযোগ। পেতে পারেন ডয়েচে ভেলে বাংলা, বিবিসি, ভয়েজ অব আমেরিকা, আল-জাজিরা, রেডিও তেহরানসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সাংবাদিকতার সুযোগ।

এছাড়াও এই বিভাগে পড়াশোনা করে আপনি মিডিয়ার বাইরে বিসিএস ক্যাডার, ব্যাংক ম্যানেজার, শিক্ষা ক্যাডারে সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী, নৌবাহিনী ইত্যাদি যে কোন পেশায় নিজেকে প্রস্তুত করতে পারেন। সার্বিক সহয়তা করবে ইউনিভার্সিটি।

জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া ষ্টাডিজ বিভাগের প্রফেসর ফারজানা ইয়াসমিন জানান, গণসংযোগ ও সাংবাদিকতা একটি কর্মমূখি শিক্ষা। এই বিভাগের সুবিধা হচ্ছে শিক্ষার্থীরা এখানে প্রায়োগিক শিক্ষাটা পেয়ে থাকে। যা তারা শিক্ষাজীবন শেষে কর্মজীবনে প্রবেশ করেই প্রয়োগ করতে পারে। আবার অনেকেই শিক্ষাজীবনেই বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ায় কাজের সুযোগ পাচ্ছে। এক কথায় এই বিভাগে পড়াশোনা তার পেশাদারিত্ব সৃষ্টিতে সহায়ক হয়।

জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া ষ্টাডিজ বিভাগের চেয়ারপার্সন ও এ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মো. শামসুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে দেশের গণমাধ্যমগুলোতে নারীর ভূমিকা যৎসামান্য থাকায় নারী গণমাধ্যম কর্মীর বিশাল শূন্যতা দেখা দিয়েছে। এই বিভাগ সে শূন্যতা পূরণে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এ ইউনিভার্সিটিতে জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া ষ্টাডিজ বিভাগের পাশাপাশি চালু রয়েছে ব্যবসায়ী প্রশাসন, সোশিওলজি এন্ড জেন্ডার ষ্টাডিজ, ই্ংরেজি এন্ড মডার্ণ ল্যাংগুয়েজেস, কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এবং আইন বিভাগ।

নারী শিক্ষার অন্যতম পথিকৃত বেগম রোকেয়ার ভাবাদর্শী, সেন্ট্রাল ইউমেন্স কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ, দুইবারের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক, নারী শিক্ষায় বিশেষ অবদানের জন্য রাষ্ট্রিয় রোকেয়া পদক ও আলোচিত নারী অনন্যা শীর্ষ পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রয়াত অধ্যাপক বেগজাদী মাহমুদা নাসির এর হাত ধরেই সেন্ট্রাল ইউমেন্স ইউনিভার্সিটির যাত্রা শুরু করে ১৯৯৩ খ্রিষ্টাব্দে। তিনি এ ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য এবং বোর্ড অব ট্রাষ্টির চেয়ারপার্সন ছিলেন। এরপর হাটি-হাটি পা-পা করে তার পথচলার তেইশ বছর অতিক্রম করেছে। নারী শিক্ষার প্রসার তথা সামাজিক ও নারী উন্নয়নে নিবেদিত প্রাণ এবং শিক্ষার্থীদের জননী, সবার প্রিয় ড. অধ্যাপক পারভীন হাসান এ ইউনিভার্সিটির  বর্তমান উপাচার্য। রেজিষ্টার হিসেবে রয়েছেন নারী শিক্ষা ও অধিকার প্রতিষ্ঠার আরেক সহযাত্রী মিসেস ফেরদৌস আলী।

এছাড়া যাদের সহচার্যে ও সহযোগীতায় ইউনিভার্সিটি এগিয়ে যাচ্ছে তার কাঙ্খিত লক্ষ্যে তাদের মধ্যে অন্যতম জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া ষ্টাডিজ বিভাগের চেয়ারপার্সন ও এ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মো. শামসুল ইসলাম, ই্ংরেজি এন্ড মডার্ণ ল্যাংগুয়েজেস বিভাগের চেয়ারপার্সন ও এ্যাসোসিয়েট প্রফেসর আব্দুস সেলিম, ব্যবসায়ী প্রশাসন বিভাগের চেয়ারপার্সন ও এ্যাসোসিয়েট প্রফেসর হাসান সিরাজী, কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারপার্সন ও এ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মো. মাইনুল ইসলাম, সোশিওলজি এন্ড জেন্ডার ষ্টাডিজ বিভাগের চেয়ারপার্সন ও প্রফেসর ড. মালেকা বেগম এবং আইন বিভাগের লেকচারার আফরিন ইসলাম। এছাড়াও এখানে রয়েছে অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলী ও কর্মকর্তা-কর্মচারী।

এ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের মানসিক ও শারিরীক উৎকর্ষ সাধনের লক্ষ্যে নিয়মিত পরিচালিত হচ্ছে ডেবিটিং ক্লাব, কালচারাল ক্লাব, বিজনেস ক্লাব, ক্যরাতে ক্লাশ, ওয়ার্কশপ, কাউন্সেলিং, মুভি শো ও ক্যুইজ কমপিটিশন। রয়েছে শিক্ষা সফর ও মেধাবী শিক্ষার্থীদেও স্কলারশীপের সুব্যবস্থা। এছাড়াও বিবাহিত নারী শিক্ষার্থীদের সন্তানদের জন্য রয়েছে ডে-কেয়ারের সুব্যবস্থা।

আপনি নিজেকে গণমাধ্যম কর্মী হিসেবে প্রস্তুত করতে চাইলে অথবা নিজের কাঙ্খিত ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে দেশের একমাত্র নারী শিক্ষার অন্যতম ও একমাত্র বিদ্যাপীঠ সেন্ট্রাল ইউমেন্স ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হউন। বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করতে পারেন সেন্ট্রাল ইউমেন্স ইউনিভার্সিটি, ৬ হাটখোলা রোড, ঢাকা। ফোন: ০২-৯৫৯১৫৫১, ৯৫৬৭৪৯৯। মুঠোফোন: ০১৯১৫-৭২১৫৬০, ০১৭৭৮-৪৯০৫২৫। ওয়েব: www.cwu.edu.bd

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2016-2020 asianbarta24.com

Developed By Pigeon Soft