1. [email protected] : AK Nannu : AK Nannu
  2. [email protected] : arifulweb :
  3. [email protected] : F Shahjahan : F Shahjahan
  4. [email protected] : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  5. [email protected] : Arif Prodhan : Arif Prodhan
  6. [email protected] : Farjana Sraboni : Farjana Sraboni
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৮ পূর্বাহ্ন

৭০ বছর পর হারানো ছেলেকে মায়ের বুকে ফিরে দিল ফেসবুক

  • Update Time : শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩০ Time View

ফকীর শাহ : মায়ের দোয়া কখনো বিফলে যায় না।ধৈর্য ধরে আল্লাহর প্রতি ভরসা রাখলে আল্লাহ কাউকে নিরাশ করেন না।আল্লাহর কাছে চাইলে সেটা একদিন না একদিন পাওয়া যাবেই।সেটা ৭০ বছর কিংবা ১শ বছর পরে হলেও পাওয়া যায়। এটাই প্রমান করলেন বাংলাদেশের এক মা।

সেই মায়ের বয়স এখন ১০০ বছর পার হয়ে গেছে।আজ থেকে ৭০ বছর আগে হারিয়ে গিয়েছিল তার একমাত্র ছেলে কুদ্দুস মিয়া।

তখন কুদ্দুসের বয়স ছিল ১০ বছর ।এরপর থেকেই হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে ফিরে পাওয়ার স্বপ্ন দেখতেন মা।ধৈর্য ধরে আল্লাহর কাছে ছেলেকে ফিরে পাওয়ার দোয়া করতেন। কখনোই হতাশ হননি তিনি। ভেবেছেন একদিন না একদিন আল।লাহ তার ছেরেকে তার কাছে ফিরিয়ে দিবেন। আল্লাহও মায়ের দোয়া কবুর করেছেন।দীর্ঘ ৭০ বছর পর মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছেন সেই হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে।

আজ শনিবার হারিয়ে যাওয়া ১০ বছরের শিশু কুদ্দুছ এখন মায়ের কোলে ফিরে এসেছেন।১০ বছর বয়সে হারিয়ে যাওয়া সেই কুদ্দুস এখন ৮০ বছরের বৃদ্ধ।

শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় বাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার আশ্রাফবাদ গ্রামে ঝরনা বেগমের বাড়িতে মা ছেলের এই দেখা হয়। ছেলেকে ফিরে পেয়ে ১০২ বছর বয়সী মা আবেগে আপ্লুত হয়ে ছেলেকে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন। ছেলেও মাকে ফিরে পেয়ে মাকে জড়িয়ে কাঁদতে থাকেন। এই দৃশ্য দেখতে কয়েক গ্রামের মানুষ ভিড় করেন।

কুদ্দুস যেভাবে হারিয়ে গিয়েছিল

কুদ্দুছের বাবা মারা যাওয়ায় তার মা মঙ্গলের নেছা ১০ বছর বয়সের কুদ্দুকে পাশের বাড়ির জামাতা পুলিশ সদস্য আব্দুল আউয়ালের সঙ্গে রাজশাহী জেলার বাঘমারা উপজেলায় পাঠায়। সেখানে গিয়েই কুদ্দুছ হারিয়ে যায়।অনেক খোজাখুজি করেও তাকে আর খুঁজে পায়নি আউয়াল মিয়া।

হারিয়ে যাওয়া কুদ্দুছকে একই উপজেলার সিংশাইর গ্রামের সাদেক মিয়ার স্ত্রী লালন পালন করেন। পরে ৩০ বছরে বয়সে বাগমারা উপজেলার সবেদ মিয়ার মেয়ে শুরুজ্জাহানকে বিয়ে করে শ্বশুর বাড়িতেই বসবাস করতে থাকেন কুদ্দুস মিয়া।

কুদ্দুসের সন্ধান মিললো যেভাবে

গত ১২ এপ্রিল রাজশাহীর বাঘমারা উপজেলার সিংশাইর গ্রামের এমকে আইয়ূব নামক এক ব্যক্তি ফেসবুকে কুদ্দুছ মিয়ার হারিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে একটি ভিডিও আপলোড করেন। এরপর ভিডিওটি ভাইরাল হলে ৫ সেপ্টেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার কয়েকজন যোগাযোগ করেন আইয়ূবের সঙ্গে। তারা কুদ্দুছ মিয়াকে তার মায়ের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলিয়ে দেন।

কুদ্দুসের হারিয়ে যাওয়ার গল্প নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেখেন সফিকুল ইসলাম নামে একজন । তিনি  বলেন,এরপর আমরা কয়েকজন রাজশাহীতে যোগাযোগ করি ও সেখানে যাই। মা ছেলের মধ্যে ভিডিও কলে কথা বলাই। ছেলের হাতের কাটা দাগ আছে এমন কথা কলার পর আমরা মিলিয়ে দেখি এবং তাকে আজ মায়ের কাছে নিয়ে এসেছি।

এরপর আজ শনিবার দেখা করেন শতবর্ষী মা ও ৮০ বয়সী সেই ছেলে।

ফেসবুকে ভিডিও আপলোডকারী এমকে আইয়ূব জানান, ‘কুদ্দুছ মুন্সি হারিয়ে যাওয়ার গল্প শুনে আমি আমার ফেসবুকে একটি ভিডিও আপলোড করি। সে ভিডিও সূত্র ধরে কুদ্দুছ মিয়ার বাড়ির কিছু লোকজন আমার সাথে যোগাযোগ করে এবং হাতের কাটা দেখে তাকে শনাক্ত করে।

মাকে কাছে পেয়ে কুদ্দুসের অনুভুতি

কুদ্দুছ মিয়া জানান, হারিয়ে যাওয়ার পর রাজশাহীর বাঘমারা উপজেলার সিংশারা গ্রামের সাদিক মিয়ার স্ত্রী আমাকে ছেলের মত লালন পালন করে। পরবর্তীতে বিয়ের পর আমার শ্বশুরবাড়িতেই থাকছি।কিন্তু মনে মনে আমার মা ও বোনদের খোঁজার চেষ্টা করেছি। আমার বিশ্বাস ছিল একদিন আমার মার সন্ধান আমি পাবো। মায়ের বুকে ফিরতে পেরে পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ মনে হচ্ছে। বাকি জীবনটা মার সাথেই থাকবো।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2016-2020 asianbarta24.com

Developed By Pigeon Soft