1. [email protected] : AK Nannu : AK Nannu
  2. [email protected] : arifulweb :
  3. [email protected] : F Shahjahan : F Shahjahan
  4. [email protected] : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  5. [email protected] : Arif Prodhan : Arif Prodhan
  6. [email protected] : Farjana Sraboni : Farjana Sraboni
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৬ পূর্বাহ্ন

আওয়ামী লীগ মানেই যাদুর চেরাগ : চা কর্মচারী যেভাবে শতকোটি টাকার মালিক

  • Update Time : বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৫৩ Time View

এফ শাহজাহান :  আলাদীনের আশ্চর্য প্রদীপ যার হাতে,গোটা দুনিয়া তার হাতের মুঠোয় থাকে। এটা আরব্য রজনীর কেচ্ছা কাহিনীর কথা। কিন্তু বাংলাদেশের বাস্তবতা একটু অন্যরকম। এখানে আলাদীনের চেরাগ পাওয়ার সুযোগ নেই। তবে এখানে আওয়ামী লীগ করলেই যাদুর চেরাগ পাওয়া যায়।এখানে যিনি আওয়ামী লীগের নেতা হতে পারেন,তার হাতেই আসে যাদুর চেরাগ। আর যাদুর চেরাগ হাতে থাকলেই গোটা দেশ তার পকেটে ঢোকে। দেশ যখন পকেটে তখন কোটিপতি হতে কয়দিন লাগে ?

এরকম এক যাদুর চেরাগ হাতে পেয়েই চায়ের দোকানীর কর্মচারী থেকে কয়েক বছরে শতকোটি টাকার মালিক হয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা চুনা খোরশেদ।

ভাগ্যের সন্ধানে চাঁদপুরের শিমড়াইল এলাকা থেকে নারায়নগঞ্জে এসে লজিং মাস্টার হিসেবে থাকতেন তিনি। পরে পেটের দায়ে শিমড়াইল এলাকায় চা দোকানে কাজ শুরু করেন। ভাগ্যক্রমে একসময়  মনোয়ারা জুট মিলে কেরানি হিসেবে কাজ পেয়ে যান খোরশেদ মিয়া।

সেখানে বেতন পেতেন  দেড় হাজার টাকা।জুটমিল বন্ধ হয়ে গেলে  শুরু করেন চুনের ব্যবস্যা।তখন থেকে তার নাম হয় চুনা খোরশেদ।

এরপর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের তিন নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সভাপতি হোন তিনি।তারপরই আলাদীনের চেরাগের মত শতকোটি টাকার মালিক হয়ে ওঠেন সেই চুনা খোরশেদ।

মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে এখন তিনি শতকোটি টাকার মালিক।একেক দিন একেক মডেলের গাড়িতে চড়েন। রাজকীয় ভঙ্গিতে কথা বলেন।তার বিলাস বহুল বাড়ির গ্যারেজে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বিলাসবহুল অনেকগুলো গাড়ি তৈরি থাকে তাকে নিয়ে ঘুরে বেড়ানোর জন্য ।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের রসুলবাগ এলাকার মানুষেরা জানান, চুনা খোরশেদ অবৈধভাবে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপন এবং সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে আবাসিক এলাকায় চুনা কারখানা গড়ে তুলে আঙুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছেন ।

রসুলবাগ এলাকায় শিমড়াইল মৌজায় ১১৩ দাগের বারো শতাংশ জমির ওপর প্রায় পনেরো কোটি টাকা ব্যয়ে দশতলা আলীশান ভবন, একই এলাকায় আল মদিনা মহিলা মাদরাসা সংলগ্ন প্রায় তিন কোটি টাকা মূল্যের দশ কাঠা জমির ওপর টিনশেড ভবন, নয়াআঁটি এলাকায় ছয় কাঠা জমির ওপর পাশাপাশি দুটি পাঁচতলা ভবন, যার আনুমানিক মূল্য আট কোটি টাকা, রাজধানীর বাড্ডা ও মিরপুর এলাকায় দুটি ভবন রয়েছে, যার আনুমানিক মূল্য ২০ কোটি টাকা, ওয়ারী এলাকায় রয়েছে দুই হাজার পাঁচশত স্কয়ারফুটের দুটি ফ্ল্যাট, যার আনুমানিক মূল্য ১০ কোটি টাকা, সিদ্ধিরগঞ্জের সিআইখোলা এলাকায় প্রায় দুই বিঘা জমির ওপর ঢাকা ও যমুনা লাইমস নামে দুটি চুনা কারখানা, যার আনুমানিক মূল্য ৩০ কোটি টাকা।

চুনা খোরশেদের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নতুন মডেলের প্রায় চার থেকে পাঁচটি বিলাসবহুল গাড়ি রয়েছে, যার আনুমানিক মূল্য পাঁচ কোটি টাকা । এ ছাড়া নামে-বেনামে বিভিন্ন এলাকায় জমাজমি, বিভিন্ন ব্যাংকে কোটি কোটি টাকা মজুদ রয়েছে তার।

মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে সামান্য কেরানি থেকে কিভাবে শতকোটি টাকার সম্পদের মালিক হয়েছেন, দুর্নীতি দমন কমিশন তার সম্পদের হিসাব দেখলে বেরিয়ে আসবে মূল তথ্য।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2016-2020 asianbarta24.com

Developed By Pigeon Soft