গাইবান্ধায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

 

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ চায়না-ইউএনডিপির সহযোগিতায় আরলি রিকভারী ফ্যাসিলিটি প্রকল্পের মাধ্যমে গণ উন্নয়ন কেন্দ্র (জিইউকে) গত বছরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ২ হাজার ৫শ পরিবারের মাঝে ঢেউটিন, কম্বল, স্কুলব্যাগ, বিছানা চার, পাতিল, ট্র্ঙ্কাসহসহ আট ধরনের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করা হয়েছে।
গতকাল দুপুরে সদর উপজেলার গিদারী জিইউকে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে থেকে ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অতিরিক্ত সচিব রিয়াজ আহমেদ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল, ইউএনডিপির প্রোগ্রাম এ্যানালিষ্ট আরিফ আবদুল্লাহ খান, প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট এ্যাডভাইজার ড. অর্ধেন্দ শেখর রায়, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলিয়া ফেরদৌস জাহান, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিসার এ.কে.এম ইদ্রিশ আলী, খান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার আনিছুর রহমান, জিইউকের নিবার্হী প্রধান এম আব্দুস সালাম ও ইউপি চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ ইদু। গতকাল সদর উপজেলার গিদারী ইউনিয়নে ২শ জন পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করা হয়। প্রকল্পের মাধ্যমে গাইবান্ধার তিন উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫০০ পরিবারের মাঝে পর্যায়ক্রমে ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করা হবে।

গাইবান্ধা ব্র্যাকের সহায়তা পেয়েছে ১ হাজার ৪৭৫টি অতিদরিদ্র পরিবার

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধা জেলার স্বাধীনতা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত তিনদিন ব্যাপী ‘উন্নয়ন মেলায় অংশ নিয়েছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। মেলায় সংস্থাটির বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচির পাশাপাশি অতিদরিদ্র কর্মসূচির কার্যক্রমের সাফল্যও তুলে ধরা হয়। ব্র্যাকের স্টলে এই কর্মসূচির বিবরণ সম্বলিত পুস্তিকা, সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ভূমিকা বিষয়ক লিফলেট, অতিদারিদ্র্য থেকে উত্তরণের পথ খুঁজে পাওয়া সফল পরিবারগুলোকে নিয়ে রচিত পুস্তিকা প্রদর্শন করা হয়।
‘অতিদরিদ্র কর্মসূচি’ কর্মসূচীর আওতায় অন্তর্ভূক্ত পরিবারগুলোকে দুই বছরব্যাপী নিবিড় ও সমন্বিত সহায়তা প্রদান করা হয়। এর মাধ্যমে ২০০২ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দারিদ্র্যপীড়িত ৪৭টি জেলার ১৭ লাখের বেশি পরিবারকে অতিদারিদ্র্য থেকে উত্তরণে সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ২০১৭ সালে গাইবান্ধা জেলায় সহায়তা পেয়েছে ১ হাজার ৪৭৫টি অতিদরিদ্র পরিবার। ২০১৮ সালে এই জেলার ৫টি উপজেলায় অতিদরিদ্র কর্মসূচির কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।
মেলার স্টল পরিদর্শন করেন গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক জনাব গৌতম চন্দ্র পাল। এসময় তাঁর কাছে ব্র্যাকের পক্ষ থেকে অতিদরিদ্র কর্মসূচির সামগ্রিক এবং জেলাভিত্তিক কার্যক্রম বিষয়ক তথ্যাবলী হস্তান্তর করা হয়। জেলা প্রশাসক তাঁর বক্তব্যে বলেন, জেলায় অতিদরিদ্র কর্মসূচিসহ ব্র্যাকের অন্যান্য কর্মসূচী দারিদ্র্য নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ব্র্যাকের এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

পলাশবাড়ীর উন্নয়ন মেলা পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ৩ দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা ২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকেলে ৩য় দিন মেলা পরিদর্শন করেন এবং মেলায় আগত সকলের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরিফ হোসেন, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নবীউল হাসান, উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম ও হোসেনপুর ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুল আমিন মন্ডল টিটুসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ছাড়াও এনজিও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, শনিবার সন্ধ্যায় আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মেলার সমাপ্তি করা হবে।

গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির প্রথম সভা

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির প্রথম সভা শনিবার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। প্রেসক্লাব সভাপতি কেএম রেজাউল হকের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন আবু জাফর সাবু, সৈয়দ নুরুল আলম জাহাঙ্গীর, নুরুজ্জামান প্রধান, আব্দুস সামাদ সরকার বাবু, দীপক কুমার পাল, অমিতাভ দাশ হিমুন, আবেদুর রহমান স্বপন, সিদ্দিক আলম দয়াল, ইদ্রিসউজ্জামান মোনা, আব্দুল মান্নান চৌধুরী, উজ্জল চক্রবর্ত্তী, আসাদুজ্জামান মামুন, উত্তম সরকার, কুদ্দুস আলম, নজরুল ইসলাম, ফেরদৌস ইসলাম খান, আরিফুল ইসলাম বাবু, খুরশিদ বিন আতা খসরু, জান্নাতুল ফেরদৌস জুয়েল, সরদার মো. শাহীদ হাসান লোটন, খায়রুল ইসলাম, এবিএম ছাত্তার।
সভায় গত সভার কার্যবিবরণী অনুমোদন, নতুন কার্যনির্বাহী কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ, ২০১৭ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব, প্রীতি সম্মিলনীর সম্ভাব্য বাজেট অনুমোদন এবং আগামী ফেব্র“য়ারি মাসের শেষ সপ্তাহে অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন সাংগঠনিক বিষয়ে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় আবেদনপত্র পর্যালোচনাপূর্বক গঠনতন্ত্র মোতাবেক বিভিন্ন মিডিয়া ও সংবাদপত্রে কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে রিকতু প্রসাদ, সুজন প্রসাদ, শেখ হুমায়ুন হক্কানী, আবু কায়সার শিপলু, মো. মাসুদার রহমান ও মো. শামসুজ্জোহাকে গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সাধারণ সদস্য হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। তদুপরি ইতোপূর্বে বাতিলকৃত প্রেসক্লাবের সাবেক সদস্যদের মধ্যে তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গঠনতন্ত্র মোতাবেক রেজাউল হক মিতা, রজতকান্তি বর্মন, ফারুক হোসেন ও মো. ফজলে রাব্বী মন্ডলকে সাধারণ সদস্য পদে পুনর্বহাল করা হয়। এছাড়া স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার পক্ষে গঠনতন্ত্র মোতাবেক কোটা অনুসারে দৈনিক ঘাঘটের সহকারী সম্পাদক আনোয়ারা বেগমকে এবং দৈনিক মাধুকরের প্রতিনিধি হিসেবে পূর্বের সাধারণ সদস্য তপন চৌধুরীর পরিবর্তে তাদের নতুন প্রতিনিধি নির্বাহী সম্পাদক মো. আবু সাঈদ সুমনকে সাধারণ সদস্য হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.