1. [email protected] : AK Nannu : AK Nannu
  2. [email protected] : arifulweb :
  3. [email protected] : F Shahjahan : F Shahjahan
  4. [email protected] : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  5. [email protected] : Arif Prodhan : Arif Prodhan
  6. [email protected] : Farjana Sraboni : Farjana Sraboni
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন

নড়াইলের ৪ কিলোমিটার পথ আজ ১৪ কিলোমিটারে পরিণত(নড়াইলের আরও 1টি খবর)

  • Update Time : সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭
  • ২১ Time View

উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:দূরত্ব চার কিলোমিটার। তা পার হয়ে চার কিলোমিটার গেলেই নড়াইলের কালিয়া উপজেলা। নড়াগাতি-গাছবাড়িয়ার রাস্তা সংস্কার না করায় সেই গন্তব্যে পৌছাতে হয় দিন দিন ১৪ কিলোমিটার ঘুরে। যুগ যুগ ধরে এভাবে যাতায়াত করতে হচ্ছে নড়াইলের কালিয়ার তিনটি ইউনিয়নবাসীকে। বিস্তারিত আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের রিপোর্টে, দূরত্ব ঘোচাতে নড়াগাতি-গাছবাড়িয়া রাস্তা সংস্কারের জন্য দুই যুগ ধরে দাবি জানিয়ে আসছেন এলাকাবাসী। রাস্তা সংস্কারের দাবিতে এলাকাবাসী কয়েকবার স্থানীয় সাংসদসহ সরকারি কমকর্তাদের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন। এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নড়াগাতি থানার উত্তর পাশে কালিয়া উপজেলার জয়নগর, খাশিয়াল ইউনিয়ন এবং বাঐসোনা ইউনিয়নের একটি অংশের বাসিন্দারা বসবাস করেন। সব মিলিয়ে বাসিন্দার সংখ্যা প্রায় ৪০ হাজার। অল্প সময়ে উপজেলা সদরে যেতে চাইলে তাদের নড়াগাতি-গাছবাড়িয়া হয়ে য্ওায়া ছাড়া উপায় নেই। অন্যথায় নড়াগাতি থানা সদর, বাঐসোনা, কলাবাড়িয়া ইউনিয়ন ঘুরে উপজেলা সদরে যেতে হয়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নড়াগাতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে গাছবাড়িয়া রাস্তা দুই মাথায় এক কিলোমিটার করে ইটের সোলিং দেওয়া আছে। বাকি রাস্তাটুকু কাচা । দীঘ দিন সংস্কার না করায় ইট উঠে ছেভট বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। পায়ে হেটে গেলে হোচট খেতে হয় । কোনো আটো-রিকশা-ভ্যান চলাচল করতে পারে না। বর্ষা মৌসুমে কাচা রাস্তার অবস্থা বেহাল হয়ে পড়ে । ইউনিয়ন তিনটির আশপাশের কয়েকটি গ্রামের শিশুরা নড়াগাতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে । রাস্তার বেহাল অবস্থার কারণে শিশুরা বিদ্যালয়ে আসতে চায় না। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহানা ইসলাম বলেন , শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬৫ জন । রাস্তা খারাপ হ্ওয়ায় বেশিরভাগ শিশুরা বিদ্যালয়ে আসো বন্ধ করে দেছে । বর্ষা মৌসুমে শিশুর সংখ্যা কমে যায়। নড়াগাতি গ্রামের জাকিয়া বেগম বলেন , পাচ দিন ধরে জ্বরে ভুগছি । রাস্তা দিয়ে কোনো ভ্যান গাড়ি চলে না । বাধ্য হয়ে হেটে যেতে হচ্ছে । জয়নগর ইউনিয়নের ৫ সাম্বার ওয়াডের ইউপি সদস্য লস্কর ফিরোজ আহম্মেদ বলেন , রাস্তার দুই পাশে বসতবাড়ি । গাছবাড়িয়ার বিলে প্রায় ১০০ হেক্টর জমির ফসল রাস্তা খারাপের জন্য আনা-নেওয়া করতে কৃষকদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। প্রকৌশলী আব্দুস সাত্তার বলেন , নড়াগাতি-গাছবাড়িয়ার চার দশমিক আট কিলোমিটার রাস্তার অবস্থা খুবই খারাপ। জনগুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটুকু সংস্কারে ইতোমধ্যে বৃহত্তর যশোর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় অর্ন্তভূক্তির জন্য প্রতিবেদন জমা হয়েছে । বরাদ্দ পাওয়া গেলে সংস্কার করা সম্ভব হবে।

সন্ত্রাসীদের তান্ডবে বাড়িঘর হারিয়ে জীবনশংকায় দিনাতিপাত করছে কলেজ পড়–য়া ছাত্র!

উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি: দিনে দিনে সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। নড়াইলের এ তৈলক্ষ্মণপাড়ায় সম্প্রতি এক কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীর বাড়িঘর ভাংচুরকে কেন্দ্র করে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। জানা গেছে, ওই এলাকার কতিপয় সন্ত্রাসীরা মাঝে মাঝে হানা দিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েমসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। খুন, ধর্ষণ, লুটপাটের মতো জঘন্য কাজ তাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। তৈলক্ষ্মণপাড়া গ্রামে আব্দুল মুকিতের ছেলে মাহমুদুল হাসানের বাড়িতে ভাংচুর ও লুটপাট চালায় ওই এলাকার কিছু সন্ত্রাসীরা। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা জানায়, তাদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকার মহিউদ্দিন মোল্যার ছেলে আবুল খায়ের মোল্যা (৫০) ও আবুল বাশার লুলু (৩৫) এবং একই গ্রামের আবুল খায়ের মোল্যার ছেলে খলিলুর রহমান (৩০) ও সোহেল (২৮) এর মাহমুদুলের সাথে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে অভিযুক্তরা মাহমুদুলের কাছ থেকে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। মাহমুদুল কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থী হওয়ার সুবাদে এলাকার বাইরে থাকে। অভিযুক্তরা প্রতিনিয়ত মাহমুদুলের মাকে চাঁদার জন্য উত্যক্ত করে এমন খবরে মাহমুদুল বাড়ি আসলে তার সাথে কথা কাটা কাটির এক পর্যায়ে অভিযুক্তরা মাহমুদুলের বাড়িঘর ভাংচুর করে। এ ঘটনায় মাহমুদুল বাদী হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের খবর পেয়ে অভিযুক্তরা আরো বেপরোয়া হয়ে মাহমুদুলের বসতবাড়ি আবারো ব্যাপকহারে ভাংচুর চালায় এবং শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। পরে স্থানীয় পুলিশ এসে ঘটনাটি নিয়ন্ত্রণ করে। এমন পরিস্থিতিতে নিরাপত্তা নিয়ে এলাকাবাসীর ভেতরও শঙ্কা দেখা দিয়েছে। সেই সাথে ভুক্তভোগী ও তার পরিবার চরম অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত করছে। ওই এলাকার মিলন, ফরিদ ও নিজাম সাংবাদিকদের জানান, অভিযুক্তরা এলাকার মধ্যেই প্রকাশ্যে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মহড়া দিয়ে বেড়ায়। এমনকি ঘটনার দিনও তারা জনসমক্ষেই বাড়িঘর ভাংচুর করে। কেউ বাঁধা দিতে গেলে তাকেও মারপিট করে। জানা যায়, অভিযুক্তরা ইতোপূর্বে অনেক অপকর্ম করেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান, অভিযুক্ত খলিলের বিরুদ্ধে ঢাকায় প্রতারণার মামলা রয়েছে। তিনি আরও বলেন, খলিল শুধু এলাকায় অপকর্ম করে না, দেশের বিভিন্ন প্রান্তেও বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম করে থাকে। এ ব্যাপারে লাহুড়িয়া ফাঁড়ির ইনচার্জ কমলকান্তি পাল জানান, গত বুধবার (১৫ নভেম্বর) উপজেলার ঘরবাড়ি ভাঙার মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ বা আদালতের আদেশ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এমন পরিস্থিতিতে অভিযুক্ত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার দাবি এলাকাবাসীর।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2016-2020 asianbarta24.com

Developed By Pigeon Soft