বগুড়ার মহাস্থান কাঁচা বাজারে শতশত টন সবজি নিয়ে চাষীরা বিপাকে

07মহাস্থান (বগুড়া) থেকে নুরনবী রহমান: ড্রাইভিং লাইসন্সে পরীক্ষার নামে সড়ক-মহাসড়কে পুলিশী হয়রানি বন্ধসহ ৭ দফা দাবি আদায়ে উত্তরাঞ্চলরে ১৬ জেলায় ট্রাক, ট্যাংক লরি ও কার্ভাডভ্যান মালকি- শ্রমকি ঐক্যপরষিদ  ১ ডসিম্বের থেেক অনর্দিষ্টিকালরে র্ধমঘট ডেকেছে। আর এ ঘোষণাটি বগুড়ার সবজি চাষীরা না জেেন তাদরে উৎপাদতি বিভিন্ন জাতের  শতশত মন তাদের  শীতকালীন সবজি নিয়ে বগুড়ার  ঐতিহাসিক মহাস্থানহাট কাঁচা বাজারে বিক্রি করতে এসে বিপাকে পড়েছে ।

মহাস্থান হাট কাঁচা বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, পুরোহাট শীতের কাঁচা সবজি দিয়ে ভরপুর। দুেরর ক্রেতারা থাকলেও তারা পরবিহণ র্ধমঘটের কারনে কাচাঁমাল কিনছে না। এতে অনেক কৃষকদের কাঁদতেও দেখা গেছে। অন্যদিকে ঢাকার ফেনীর আবুল হোসেন নামের এক পাইকাড় ঝুকি নিয়ে ৭ লক্ষ টাকার, নতুন আলু, মুলা, বাধাঁ কপি, ফুলকপি, বেগুন, কাঁচামরিচ কিনছেনে।  কিন্তু তিনি সব মালামাল বস্তাবন্দী করলেও পরে কোন পরিবহণ না পাওযায় সেগুলো মহাস্থান হাটে পড়ে থাকতে দেখা যায়। নরসংদীর বড় পাইকাড় নাসির উদ্দীন, তোজাম্মেল, এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, প্রতি দিরনর ন্যায় আমি আজ তিন লাখ টাকার সবজি কিনেছি কিন্তু হঠাৎ পরবিহণ শ্রমিক ও মালিকদের অনির্দিষ্টি কালের র্ধমঘট আমাদের পথে বসে দিচ্ছে।

এবিষয়ে সবজি বিক্রেতা চাষীদের সাথে কথা বলে জানা যায়,  যে, ফুলকপি আটশ, হাজার টাকা দরে বিক্রি হয়েেছ আজ তা ৩’শ টাকা মন, বাধাঁ কপি বুধবার ছিল ২২ টাকা পিস বৃহস্পতিবার তা ৬ টাকা পিস, মুলা ২শ টাকা মন, নতুন আলু ৩৫ টাকা কেজি, বেগন ৪শ টাকা, বরবটি ৫৫০/- মন, পেপে ৩শ টাকা মন, গাজর, ৮০০ টাকা মন, করলা ৬শ টাকা মন। শুধু এই নয় শ্রমিক র্ধমঘটের কারণে মহাস্থান বাজারে প্রতটি পণ্যরে বাজারই ছিল  ধ্বস। র্ধমঘট স্থগিত করার বিষয়ে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরষিদরে আহ্বায়ক আব্দুল মান্নানরে সাথে কথা বললে, তিিন জানান, আমাদরে ৭ দফা দাবি না মানা র্পযন্ত সদ্ধিান্তঅনড় থাকবে। উল্লখ্যে যে, বুধবার বগুড়ায় ট্রাক মালিক সমিতির র্কাযালয়ে আয়োজিত উত্তরবঙ্গ ট্রাক ট্যাংক লরি কার্ভাডভ্যান মালিক-শ্িরমক ঐক্যপরিষদরে সভা থেকে এ র্ধমঘটের আহ্বান জানানো হয়।

08সাত দফা দাবির মধ্যে রয়েছে, টোকেন, ফিটনেস রুট পারমিটর বকেয়া সুদ মওকুফ, ওয়ে স্কলেরে (ওজন পরিমাপক যন্ত্র) নামে চাঁদাবাজি বন্ধ, সড়ক-মহাসড়কে অবধৈ যান চলাচল বন্ধ, ড্রাইভং লাইসন্সে নবায়নের ক্ষেত্রে হয়রানি বন্ধ এবং সহজ র্শতে নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান।
ঐক্যপরিষদের সভায় জানানো হয়, সংগঠনের পক্ষ থেকে ইতির্পূবে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে দাবি-দাওয়া মেনে নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছিল। কিন্তু প্রশাসন তা অগ্রাহ্য করে ফলে র্পূব ঘোষণা অনুযায়ী ১ ডিসেম্বর সকাল ৬টা থেকে পরর্বতী ঘোষণা না দেওয়া র্পযন্ত উত্তরাঞ্চলে ট্রাক, ট্যাংক লরি ও কার্ভাডভ্যানে পণ্য পরিবহন বন্ধ থাকবে। ধর্মঘটের কারণে মহা সড়কে শত শত পূণ্যবাহী ট্রাক আটকে থাকতে দেখা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.