গাইবান্ধায় উদীচীর দ্বাদশ জেলা সম্মেলন

16 গাইবান্ধা থেকে আরিফ উদ্দিন: “অশুভ রুধিতে ধর নির্ভয় গান”এই শ্লোগান নিয়ে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, গাইবান্ধা জেলা সংসদের দ্বাদশ জেলা সম্মেলন শনিবার জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন উদীচী-গাইবান্ধার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী শাহ মশিউর রহমান। জাতীয় সংগীত, জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলনের শুভ সূচনা করা হয়।

উদ্বোধনের পর একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে। জেলা সংসদ ও দারিযাপুর শাখার শতাধিক শিল্পীকর্মী এতে অংশ নেয়। শাহ মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয কমিটির সহ-সভাপতি ড.শ্বাশত ভট্রাচার্য়, সহ-সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার তপন,গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র অ্যাডেভোকেট শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির মিলন, ওয়াকার্স পার্টির পলিট বুরে‌্যার সদস্য আমিনুল ইসলাম গোলাপ, উদীচী গাইবান্ধার সভাপতি জহুরুল কাইয়ুম, জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিুর রহমান মুকুল, সাংবাদিক অমিতাভ দাশ হিমুন, মাহমুদুল গণি রিজন, শিরিন আকতার,মিঠুন রায় প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, দেশে  আজ সাম্প্রদায়িকতা ছড়িয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিপন্ন করার চেষ্টা চলছে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় সাঁওতাল আদিবাসীদের ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদের ঘটনা ঘটছে। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে সাংস্কৃতিক জাগরণ দরকার। সাংস্কৃতিক জাগরনেই কেবল দেশকে এই ভয়াবহ অবস্থা থেকে মুক্তি দিতে পারে। উদীচী সেই কাজটি করে চলেছে।

বক্তারা গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল পল্লীতে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত তিন সাঁওতাল হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে, অবিলন্বে এই হত্যাকান্ডে বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেন।

বক্তারা আরও বলেন, দেশের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জেএসসি পিএসসি পরীক্ষার মাধ্যমে একটি অসম প্রতিযোগিতায় ঠেলে দেয়া হয়েছে। গোল্ডেন এ প্লাস পাওয়ার প্রতিযোগিতায় অভিভাবকরা শিশু কিশোরদের কোচিং, প্রাইভেট ইত্যাদিতে ব্যস্ত রেখে মননশীল চর্চা থেকে বিরত রাখছেন। তারা দেশ মানুষ প্রকৃতি ইত্যাদি কিছুই চিনছে না।

অভিভাবকরা তার সন্তানদের শৈশব, কৈশর ও যৌবন কাল হত্যা করছেন। বক্তারা এসব প্রতিরোধে সাংস্কৃতিক লড়াইয়ের মাধ্যমে একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান জানান।

সম্মেলনে সাংগঠনিক প্রস্তাব, সাধারণ প্রস্তাব ও গোবিন্দগঞ্জ সাঁওতাল পল্লীতে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের হামলার বিচার দাবি করে বিশেষ প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। ছবি সংযুক্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.