সুন্দরগঞ্জে ভূয়া স্বামী-স্ত্রী এনজিও কর্মী আটক

03গাইবান্ধা থেকে আরিফ উদ্দিন: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ স্বামী-স্ত্রী’র পরিচয়ে দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া বাসায় অবস্থান কারী ২ এনজিও কর্মীকে আটক করেছেন এলাকাবাসী। জানা যায়, বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার ছাপড়হাটী ইউনিয়নের পশ্চিম ছাপড়হাটী গ্রামের জনৈক তাজুল ইসলামের বাড়ি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ঐ ২ এনজিও কর্মী ভূয়া স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দানকারীদেরকে আটক করেন স্থানীরা।

তারা উভয়ই বে-সরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এসকেএস’র সৌহার্দ্য কর্মসূচির এফএফ পদে কর্মরত। এদের মধ্যে ভূয়া স্বামী কুড়িগ্রাম জেলা সদরের রামকৃষ্ণ অধিকারীর ছেলে ২ সন্তানের জনক মিলন অধিকারী গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কালির বাজার অফিসে কর্মরত। আর ভূয়া স্ত্রী নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার লন্ড্রী ইউনিয়নের ব্রহ্মানগড় গ্রামের শামসুর রহমান মোল্লার মেয়ে ছাপড়হাটী ইউনিয়নের উক্ত এনজিও’র এফএফ পদে কর্মরত রয়েছেন।

এব্যাপারে কথা হলে তারা বলেন-মিলন অধিকারীর পূর্ব স্ত্রী, ২ সন্তান ও সনাতন ধর্মালম্বী তা না বলে ভূয়া পরিচয় দিয়ে বিগত ১০ মাস ধরে প্রেম অতঃপর অবৈধ দৈহিক মেলামেশার একপর্যায়ে স্বামী-স্ত্রী’র পরিচয় দিয়ে এই ভাড়া বাসায় অবস্থান করছে।

স্থানীয়রা জানান, ফুলছড়ি উপজেলায় কর্মরত হলেও মিলন অধিকারী প্রত্যহ এসে স্বামী-স্ত্রী’র পরিচয় দিয়ে এখানে রাত্রী যাপন করে কর্মস্থলে চলে যায়। তাদের গতিবিধী সন্দেহ জনক দেখা দেয়ায় তাদেরকে আটক করলে উভয়ই ভিন্ন ধর্মাবলম্বী ছাড়াও তারা যে ভূয়া পরিচয় দিয়ে স্বামী-স্ত্রী’র ন্যায় বসবাস করছিল তার প্রমাণ পাওয়া যায়। স্থানীয়রা এর ন্যায় বিচারের দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.