গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতালদের উপর দমন নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে: কমরেড খালেকুজ্জামান

05গাইবান্ধা থেকে আরিফ উদ্দিন: বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল এদেশে শ্রমিক রাজ-কৃষক রাজ কায়েম করা। কিন্তু স্বাধীনতার ৪৫ বছর পেরিয়ে গেলেও আজও স্বাধীনতার সেই চেতনা বাস্তবায়িত হয়নি। উপরন্তু মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ পরিচালিত না করায় দেশ ও জনগণ আজ ভয়াবহ সংকটে জর্জরিত।

মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নেই, কৃষক ফসলের দাম পায় না, শ্রমিক বাঁচার মত মজুরি থেকে বঞ্চিত। শাসক শ্রেণি সা-রাজ্যবাদের সাথে গাঁটছড়া বেঁধে তাদের কাছে নতজানু হয়ে দেশি-বিদেশি লুটেরাদের হাতে জাতীয় সম্পদ-প্রাকৃতিক সম্পদ তুলে দিচ্ছে। ভারতের স্বার্থে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র করে সুন্দরবন ধ্বংসের চক্রান্ত করছে। পাবনার রূপপুরে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করে জনগণকে মৃত্যু মুখে ঠেলে দিচ্ছে।

তিনি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতালদের উপর দমন নিপীড়ন বন্ধ এবং তাদের ন্যায্য অধিকার ভূমি মালিকানা ফিরিয়ে দেয়ার দাবী জানান। তিনি বলেন, অসৎ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য একটি কুচক্রি মহল সাঁওতালদের অস্তিত্ব বিপন্ন করে তুলেছে। তারা এখন নিরাপত্তাহীন এবং ঘরবাড়ি ছাড়া। অবিলম্বে তাদের পুনর্বাসনের দাবি জানান তিনি। এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের নিরাপত্তা এবং ক্ষতিপূরণেরও দাবি করেন তিনি।

বুধবার বিকেলে বাসদের ৩৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও রুশ বিপ¬বের ৯৯তম বার্ষিকী উপলক্ষে গাইবান্ধা জেলা বাসদের উদ্যোগে স্থানীয় পৌর পার্ক শহীদ মিনার চত্বরে এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে খালেকুজ্জামান এসব কথা বলেন। জেলা বাসদের সমন্বয়ক গোলাম রব্বানীর সভাপতিত্বে আয়োজিত জনসভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জাহেদুল হক মিলু, জেলা ফোরামের সদস্য সুকুমার চন্দ্র মোদক, আবু বকর সিদ্দিক, ইসরাত জাহান, অ্যাডভোকেট মোস্তফা মনিরুজ্জামান, কার্তিক  চন্দ্র, আব্দুর রউফ, খলিলুর রহমান প্রমুখ।

খালেকুজ্জামান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল ধর্ম নিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক দেশ প্রতিষ্ঠা। আজ সারাদেশে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। ১৯৭১ সালে জনগণ এই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে পরাজিত করেছিল কিন্তু শাসকদের পৃষ্ঠপোষকতায়, আশ্রয়-প্রশ্রয়ে সেই পরাজিত শক্তি আজ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে দানবের রূপ নিয়ে। এই অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এর আগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.