1. aknannu1964@gmail.com : AK Nannu : AK Nannu
  2. admin@asianbarta24.com : arifulweb :
  3. angelhome191@gmail.com : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  4. info@asianbarta24.com : Dev Team : Dev Team
বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:৫৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :

সিরাজগঞ্জে ইটভাটা মালিক-শ্রমিকদের মানববন্ধন 

  • আপডেট করা হয়েছে : রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২
  • ৯৪ বার দেখা হয়েছে
এম.দুলাল উদ্দিন আহমেদ,জেলা  প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ:
ইটভাটা নিয়ে সৃষ্ট সঙ্কট নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান সিরাজগঞ্জ ইটভাটা মালিক ও শ্রমিকরা। এ উপলক্ষে রোববার (২৭ নভেম্বর) সকাল ১০ টার দিকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী মালিক ও শ্রমিকদের উদ্যোগে দীর্ঘ এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
অনষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, সিরাজগঞ্জ জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা তালুকার,সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম,সদস্য এমদাদুল হক এমদাদ, রায়গঞ্জ উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম হোসেন শোভন  সরকার,সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ ও অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ওমর ফারুক খান জুবায়ের প্রমুখ।
এ সময় জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা তালুকদার তার বক্তব্যে বলেন,ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ এবং ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রন(সংশোধন)আইন ২০১৬ সংশোধিত খসড়া আইন মেনে বৈধ লাইসেন্স এর মাধ্যমে ইটভাটার ব্যবসা চলছে। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সর্বোচ্চ ১২০ ফুট উচ্চতার চিমনি, জিগজাগ ভাটা স্থাপন, জ্বালানি কাঠের পরিবর্তে কয়লার ব্যবহার নিশ্চিত করা হয়েছে।
কিন্তু সম্প্রতিক কয়লা সংকটে সিংহভাগ ইটভাটা বন্ধ রয়েছে। এতে বেকার হয়ে পড়েছে হাজার হাজার শ্রমিকরা। তিনি ২০১৯ এ বর্ণিত জিগ-জ্যাগ ইট ভাটার পরিবেশ ছাড়পত্র ও লাইসেন্স প্রাপ্তি এবং বর্তমান কয়লা সংকট সমাধানের জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।
রায়গঞ্জ উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম হোসেন শোভন সরকার তার বক্তব্যে বলেন,বর্তমানে চলমান ইট প্রস্তুত মৌসুমে শ্রমিকেরা ভাটায় কাজ করে পরিবারের সস্যদের পেটে আহার যোগাতে পারছেন। ঠিক সেই সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে একের পর এক ইটভাটায় জরিমানা ও গুঁড়িয়ে দেওয়ায় শ্রমিকেরা কর্মহীন হয়ে পড়ছে। আর আমরা পুঁজি হারিয়ে পথে বসার মত অবস্থা। সুতরাং এ অবস্থায় ইটভাটায় আমাদের ও শ্রমিকদের কর্মস্থানের সুযোগ অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।
অন্যান্য বক্তারা বলেন,সিরাজগঞ্জে ১৬০টি ইটভাটা আছে। এসব ইটভাটায় প্রায় ৪০ হাজার শ্রমিক কাজ করে। এ থেকে প্রতি বছর সরকার প্রায় ১৬ কোটি টাকা ভ্যাট পায়। এ ছাড়া ভূমিকর, ট্রেড লাইসেন্স,আয়কর ও স্থানীয়কর দিয়ে ইটভাটাগুলো জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। বিভিন্ন আইনী জটিলতা ও কয়লার সংকটে ইটভাটাগুলো বন্ধ হয়ে গেলে মালিকরা ঋণগ্রস্ত ও ৪০ হাজার শ্রমিক কর্মহীন হয়ে হয়ে পড়বে। শ্রমিকরা পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করবে। দেশে উন্নয়ন কর্মকান্ডের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে লাইসেন্সসহ পরিবেশ বান্ধব ইটভাটা গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ইটভাটা মালিক ও শ্রমিকরা।
মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারক লিপি দেওয়া হয়। তবে জেলা প্রশাসক না থাকায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) গনপতি রায় এ স্মারকলিপিটি গ্রহন করেন। অপরদিকে একই দাবীতে ভুইয়াগাঁতী বাসস্ট্যান্ডে রায়গঞ্জ উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

এরকম আরও বার্তা
স্বত্ব © ২০১৫-২০২২ এশিয়ান বার্তা  

কারিগরি সহযোগিতায় Pigeon Soft