1. aknannu1964@gmail.com : AK Nannu : AK Nannu
  2. admin@asianbarta24.com : arifulweb :
  3. angelhome191@gmail.com : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  4. info@asianbarta24.com : Dev Team : Dev Team
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :

সিরাজগঞ্জে বিএনপি-আ’লীগ সংঘর্ষ, সাবেক এমপিসহ আহত১৫, তিনটি গাড়ীসহ ১০টি মটরসাইকেল ভাংচুর

  • আপডেট করা হয়েছে : শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২২
  • ৬৪ বার দেখা হয়েছে
এম দুলাল উদ্দিন আহমেদ, সিরাজগঞ্জ  প্রতিনিধি: আগামী ৩ ডিসেম্বর বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশকে সামনে রেখে  শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ সদরে বিএনপি নেতাকর্মীরা বিএনপির কেন্দ্রীয় নেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়ার নেতৃত্বে জনগণের মধ্যে লিফলেট বিতরণকালে আ’লীগের নেতা-কর্মীদের হামলার শিকার হয়েছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা ।  এহামলায় সাবেক এমপি রুমানা মাহমুদসহ বিএনপির ১৫ নেতাকর্মী আহত ও ৩টি গাড়ীসহ ১০টি মটরসাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।
জানাগেছে,লিফলেট বিতরণ শেষ করে কেন্দ্রীয় নেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়া,সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি রুমানা মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু কামারখন্দ উপজেলা বিএনপির আয়োজিত স্থানীয় জামতৈল রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন বাজারে দলীয় অফিসের সামনে বক্তব্য রেখে ফেরার সময় স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।
এতে সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য রুমনা মাহমুদসহ বিএনপির অনন্ত ১৫ নেতা-কর্মী আহত হয়। এছাড়াও এ হামলায় বেগম রুমানা মাহমুদের গাড়ীসহ তার বহরে থাকা জেলা বিএনপির শিল্প ও বাণিজ্যিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল আলীম সরকার এবং বিএনপি নেতা জিব্রাইলের গাড়ী ও ১০টি মটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়। এসময় হামলার শিকার হয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীরা পাল্টা প্রতিরোধ করার চেষ্টা করলে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে জামতৈল রেল স্টেশন বাজার,কামারখন্দ উপজেলা অফিসের সামনের সড়ক ও কামারখন্দ থানা সড়ক পর্যন্ত রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এদিকে পুলিশ বলছেন,পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ধাওয়া করতে তারা রাবার বুলেট ছুঁড়লে বি্এনপির কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে সহকারী পুলিশ সুপার (কামারখন্দ সার্কেল) আদনান মুস্তাফিজ ও থানার ওসি নুরন্নবী প্রধানসহ ছয় পুলিশ সদস্য আহত হয়।
সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু বলেন, আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীর জনসভা সফল করতে কামারখন্দে দলীয় কার্যালয়ে আমরা আলোচনার আয়োজন করি। সেখানে কেন্দ্রীয় নেত্রী সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়া, জেলা বিএনপির সভাপতি রুমানা মাহমুদসহ আরও অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে দলীয় কার্যালয় থেকে বের হয়ে আমরা রেলওয়ে স্টেশনে এলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালান। তারা সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সভাপতি রুমানা মাহমুদের গাড়িসহ ৩টি গাড়ীসহ ১০টি  মোটরসাইকেল ভাংচুর করেন। পরে প্রতিরোধ করতে গেলে পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের লক্ষ্য করে ছররা গুলি ছোড়ে। এতে রুমানা মাহমুদ ও আমিসহ অন্তত ১০ জন নেতাকর্মী আহত হই।
এ বিষয়ে কামারখন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন শেখ বলেন, এসংঘর্ষে স্টেশন এলাকায় থাকা তাদের ৭জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।
এ বিষয়ে কামারখন্দ থানার ওসি নুরনবী প্রধান জানান,বিএনপি নেতাদের বহনকারী মাইক্রোবাস ভাঙচুরের ঘটনার পর উভয় দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এ ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে এখনও কেউ আটক হয়নি।
সহকারী পুলিশ সুপার (কামারখন্দ সার্কেল) আদনান মুস্তাফিজ বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে আমি ও থানার ওসি নুরন্নবী প্রধানসহ ছয় পুলিশ সদস্য আহত হয়েছি।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

এরকম আরও বার্তা
স্বত্ব © ২০১৫-২০২২ এশিয়ান বার্তা  

কারিগরি সহযোগিতায় Pigeon Soft