1. aknannu1964@gmail.com : AK Nannu : AK Nannu
  2. admin@asianbarta24.com : arifulweb :
  3. angelhome191@gmail.com : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  4. info@asianbarta24.com : Dev Team : Dev Team
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
নাইক্ষ্যংছড়িতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর বিয়ে ঠেকালো ইউএনও ১০ ডিসেম্বর বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় গণ সমাবেশ নয়াপল্টনেই হবে; মির্জা ফখরুল জীবনের পরম তৃপ্তি আর ভালোবাসায় জড়িয়ে আছে সলঙ্গার প্রিয় নীড়ের তৃতীয় লিঙ্গের বাসিন্দারা রাণীশংকৈলে ২০০ ফুট পতাকা নিয়ে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের মিছিল জয়পুরহাট আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে নৃপেন্দ্রনাথ সভাপতি  ও শাহীন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্বপাড়ের বাগান থেকে অজ্ঞাত যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার মানবিক গুণাবলি বিকাশে লেখকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ : লায়ন গনি মিয়া বাবুল গাইবান্ধা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলামকে বদলি নতুন পুলিশ সুপার মো. কামাল হোসেন গাইবান্ধায় বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের ১ম জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল নারীদের ক্রীড়া ও ঐতিহ্যবাহী তীর ছোড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক উৎসব

জয়পুরহাটে মৃত মাকে জীবিত দেখিয়ে জমি লিখে নিয়েছে দুই মেয়ে

  • আপডেট করা হয়েছে : মঙ্গলবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২২
  • ১৪ বার দেখা হয়েছে
জয়পুরহাট প্রতিনিধি:  মৃত্যুর ১৫ দিন পর মাকে জীবিত দেখিয়ে দুই মেয়ে নিজেদের নামে জমি দলিল করে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কয়েকমাস আগে জয়পুরহাট সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে মৃত ব্যক্তির নামে দলিল হওয়ার এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে সম্প্রতি বিষয়টি জানাজানি হয়।
মৃত ব্যক্তির পরিবার ও জয়পুরহাট সাব রেজিস্ট্রি অফিস সূত্রে জানা গেছে, বার্ধক্যজনিত কারণে জয়পুরহাট সদর উপজেলার উত্তর জয়পুর গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের বিধবা স্ত্রী সহিদা বিবির (৬০) মৃত্যু হয় গত ১৩ জুন।
তার তিন মেয়ে ও এক ছেলে। মৃত্যুর পর সহিদা বিবির নামে থাকা ১৩ শতাংশ জমি সন্তানরা ভাগ করে নেয়। কিন্তু মৃত্যুর ১৫ দিন পর তার দুই মেয়ে উত্তর জয়পুর গ্রামের ফিরোজা বিবি ও জিতারপুর গ্রামের জরিনা বিবি মা সহিদা বিবিকে জীবিত দেখিয়ে গত ২৮ জুন সাড়ে ৫ শতাংশ জমি জয়পুরহাট সাব-রেজিস্ট্রি অফিস থেকে দলিল করে নেয়। দলিলে জমির দাতা হিসেবে দেখানো হয়েছে সহিদা বিবিকে।
স্থানীয় দোগাছি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে গত ৩ অক্টোবর সরবরাহ করা মৃত্যু নিবন্ধন সনদে দেখা গেছে, সহিদা বিবির মৃত্যু হয়েছে গত ১৩ জুন। আর মৃত্যুর কারণ হিসেবে উল্লেখ রয়েছে বার্ধক্য।
সহিদা বিবির নাতী (ছেলের সন্তান) মামুনুর রশিদ বলেন, দাদির মৃত্যুর পর তার রেখে যাওয়া জমির সাড়ে ৫ শতক তার বাবা শহীদুল ইসলাম ওয়ারিশ সূত্রে ভাগ পেয়েছেন। কিন্তু ভাগ পাওয়া জমি দখলে নেওয়ার পর তার দুই ফুফু ফিরোজা ও জরিনা হুমকি দিয়ে বলেছেন পরে দলিল বের হলে জমি ফেরত দিতে হবে।
এতে তার সন্দেহ হলে তিনি স্থানীয় সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সহিদা বিবি জীবিত অবস্থায় কোনো দলিল করেছেন কি-না তার খোঁজ নিতে গিয়ে বিষয়টি জানাজানি হয়।
তিনি বলেন, দাদি সহিদা বিবির জাতীয় পরিচয়পত্র নকল করে গত ২৮ জুন তার দুই ফুফু সাড়ে ৫ শতক জমি নিজেদের নামে দলিল করে নিয়েছেন। দাদির কাছ থেকে পাওয়া জমিতে পুনরায় তারা ভাগ নেওয়ার জন্যই এই নকল দলিলের সৃষ্টি করেছে।
দলিল লেখক সাধন চন্দ্র জানান, তিনি স্বাক্ষর করলেও ওই দলিলের বিষয়ে কিছুই জানেন না। তিনি খুবই অসুস্থ।
রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক ফারাজুল ইসলাম ওই দলিলে তার স্বাক্ষর নিয়েছেন। বিনিময়ে তিনি একশ টাকা পেয়েছেন।
ফারাজুল ইসলাম দলিলের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন তিনি এ ঘটনার সাথে জড়িত নয়। মৃত ব্যক্তিকে দিয়ে কোনো দলিল হয়নি। শুনেছি বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করা হয়েছে।
এ বিষয়ে কথা বলার জন্য সহিদা বিবির বড় মেয়ে উত্তর জয়পুর গ্রামের ফিরোজা বিবির বাড়িতে গেলে তিনি দেখা করেননি। এ সময় তার ছোট বোন জরিনা বেগম বলেন, তার বোন বাড়িতে নেই। এ বিষয়ে তিনি কিছুই বলতে পারবেন না।
জয়পুরহাট সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার দোস্ত মোহাম্মদ মৃত ব্যক্তিকে দাতা দেখিয়ে জমি দলিল করে নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, গতকাল বিষয়টি জেনেছি। দাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি নকল করে এই দলিল করা হয়েছে। বিষয়টি বুঝতে পারিনি। তবে মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে এমন জাল দলিল করার পেছনে কারা জড়িত আছে, সেটার বিষয়ে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

এরকম আরও বার্তা
স্বত্ব © ২০১৫-২০২২ এশিয়ান বার্তা  

কারিগরি সহযোগিতায় Pigeon Soft