1. aknannu1964@gmail.com : AK Nannu : AK Nannu
  2. admin@asianbarta24.com : arifulweb :
  3. angelhome191@gmail.com : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  4. info@asianbarta24.com : Dev Team : Dev Team
রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ধারের টাকা চাইতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার এক গৃহবধূ

  • আপডেট করা হয়েছে : শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২২
  • ৬৮ বার দেখা হয়েছে

আব্দুল লতিফ তালুকদার
টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে এক মহিলাকে ধর্ষণ ও প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়াসহ নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে কথিত প্রেমিক বেল্লাল নামে এক বালু ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের চিতুলিয়াপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা প্রকাশ করলে তার সন্তানকে প্রাণনাশের হুমকিও দেন বেল্লাল।

ধর্ষণ, নির্যাতনের বিচার ও পাওনা টাকা ফেরত চেয়ে বুধবার রাতে ভুক্তভোগী নারী বেল্লালের বাড়িতে ওঠেন। পরে বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) সকালে তাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেন বেল্লালের পরিবারের লোকজন। এর পর থেকে বেল্লাল পলাতক রয়েছেন।

ভুক্তভোগী নারী জানান, বেল্লাল বালু ব্যবসার নামে আমার থেকে বিভিন্ন সময়ে ৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা ধার নিয়েছে। টাকা নেওয়ার পর থেকে নানা সময়ে কু-প্রস্তাব দিত। প্রস্তাবে রাজি না হলে পাওনা টাকা ফেরত দেবে না বলে সে জানায়। একপর্যায়ে টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে বেল্লাল তার বিভিন্ন আত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ ও ধার নেওয়ার টাকার বিষয়টি কাউকে না বলি এ জন্য শপথ করান এবং কাউকে বললে আমার সন্তানকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় বেল্লাল।

তিনি জানান, বেশ কয়েক মাস ধরে সেই পাওনা টাকা চাইলে টালবাহানা করে বেল্লাল। এ নিয়ে গ্রাম্য সালিশে মীমাংসার কথা বলেও মীমাংসা করেনি। পরে বাধ্য হয়ে ধর্ষণের বিচার ও পাওনা টাকা ফেরতের জন্য বেল্লালের বাড়িতে উঠলে বেল্লালের মা ও স্ত্রী আমাকে মারধর করে।

স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, ওই নারীর স্বামী বিদেশ যাওয়ার জন্য টাকা সংগ্রহ করে আসছিল। এরই মাঝে বেল্লাল তার কাছ থেকে টাকা লেনদেনের শুরু করে। শুনেছি বিভিন্ন ব্যাংক ও এনজিও থেকে সে লোন তুলেছিল। সেই টাকা বালু ব্যবসায়ী বেল্লালকে ধার দেন।
বিষয়টি অস্বীকার করে বেল্লালের স্ত্রী ও মা জানান, বেল্লালের সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক নেই। আর তাকে মারধরও করা হয়নি। এছাড়াও বেল্লাল তার কাছ থেকে টাকাও ধার নেয়নি। এ ঘটনার বিষয়ে জানতে বেল্লালকে তার বাড়িতে পাওয়া যায়নি, ফোন করলেও রিসিভ করেননি।

এ প্রসঙ্গে গোবিন্দাসী ইউপি চেয়ারম্যান মো. দুলাল হোসেন চকদার জানান, ভুক্তভোগী ওই নারী কয়েকদিন আগে আমার কাছে এসেছিল। সে জানিয়েছে বেল্লাল তার কাছ থেকে ৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা নিয়েছে এবং টাকার লভ্যাংশ দিয়ে আসছিল। পরবর্তীতে বেল্লালের কাছে জানতে চাইলে বেল্লাল তার থেকে টাকা নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করায় ওই নারীকে সাক্ষী-প্রমাণ নিয়ে আসতে বলেছি। আজকে জানতে পারলাম বেল্লাল তাকে ধর্ষণ করেছে এবং তার বাড়িতে উঠেছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি, তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

এরকম আরও বার্তা
স্বত্ব © ২০১৫-২০২২ এশিয়ান বার্তা  

কারিগরি সহযোগিতায় Pigeon Soft