1. aknannu1964@gmail.com : AK Nannu : AK Nannu
  2. admin@asianbarta24.com : arifulweb :
  3. angelhome191@gmail.com : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  4. info@asianbarta24.com : Dev Team : Dev Team
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :

রেলওয়ের ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দদের নিয়ে পোষ্য সোসাইটির সংলাপ

  • আপডেট করা হয়েছে : বুধবার, ৫ অক্টোবর, ২০২২
  • ১১ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট: রাজধানীতে রেলওয়ের অন্তর্ভুক্ত ট্রেড ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির কেন্দ্রীয় কমিটির সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (৫ই অক্টোবর) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত ❝বাংলাদেশ রেলওয়ের নিয়োগ, পদোন্নতি, বিধিমালা সংশোধন, আউটসোর্সিং বাতিল, টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিকদের স্থায়ীকরণ, কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী কর্মচারীর পোষ্যকে সরাসরি নিয়োগ, কর্মচারী ও পোষ্যদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় করণীয়❞ শীর্ষক সংলাপে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির কেন্দ্রীয় সভাপতি মনিরুজ্জামান মনিরের সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ (স্কপ) ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন।

আয়োজিত উক্ত সংলাপে রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি সাইদুজ্জামান শিপনের সঞ্চালনায় অন্যান্য বিশেষ আলোচকদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী রেলওয়ে শ্রমিক ও কর্মচারী দলের সাধারণ সম্পাদক এম. আর. মঞ্জু, বাংলাদেশ রেলওয়ে কারিগরি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এস. কে. বারী, বি. আর. ই. এল. এর সভাপতি কাজী আনোয়ারুল হক, বাংলাদেশ রেলওয়ে অফিস কর্মচারী পরিষদের আহবায়ক সৈয়দ আবজুরুল হক তুহিন, দি ডেইলি স্টারের প্রধান কর্পোরেট এফেয়ার্স এ. এস. এম. নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির উপদেষ্টা ইউসুফ রশীদি, রাজ্জাক মল্লিক, পোষ্য সোসাইটির কেন্দ্রীয় যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন সাগর, সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন বাবু, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুবর রহমান মানিক।

সংলাপ থেকে এই সিদ্ধান্তে সকলে একমত হয় যে, রেলকে ধ্বংস করার চক্রান্তকারীরা পোষ্যদের পাশ কাটিয়ে তথাকথিত বিধিমালার নামে নিজেদের লোক নিয়োগের মাধ্যমে পারিবারিক বিত্ত গড়ে তুলছে। অথচ যাদের রক্তমাখা ঘামে রেল চলছে তাদের সন্তানদের রেল প্রতিষ্ঠানের পা রাখার সুযোগ নেই। দেশের জনগণের সেবামূলক এই রেলওয়ের লক্ষ কোটি টাকার সম্পদ মন্ত্রী-সচিব সহ কতিপয় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার যোগসাজসে কোটি কোটি টাকার বিনিময়ে বহিরাগত গোষ্ঠীর হাতে হস্তান্তর করা হচ্ছে। এই লাভজনক প্রতিষ্ঠানটিকে কতিপয় কর্মকর্তার লুটপাটের কারণে প্রতি বছর অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রমাণ করার প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। রেল জনগণের সম্পদ, এই সম্পদকে বাঁচাতে হলে প্রথমেই রেলওয়ে কর্মচারী ও রেল পোষ্যদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। রেলওয়ে কর্মচারী ও পোষ্যদের অধিকার প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে রেল রক্ষার আন্দোলনকে জাতীয় আন্দোলন হিসেবে রূপরেখা প্রদান করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্যে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ❝বিধিমালা ২০২০ একটি স্বৈরাচারীতামূলক নিয়োগবিধি, এই নিয়োগবিধি দ্রুত সংশোধন করে কর্মচারী বান্ধব নিয়োগ বিধির মাধ্যমে জনবল নিয়োগ করতে হবে এবং ত্রুটিপূর্ণ নিয়োগ বিধিতে নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে। নিয়োগবিধি ২০২০ কর্মচারী ও রেল পোষ্যদের অধিকার গলাটিপে হত্যার নিয়োগ বিধিতে পরিনত হয়েছে। এক দিকে পোষ্যরা তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, অন্য দিকে পূর্বের নিয়োগ বিধির চাইতে বর্তমান নিয়োগ বিধিতে নিয়োগ দূর্নীতির ব্যাপকতা লাভ করেছে। মেধাবী নির্বাচনের নামে নিয়োগ দূর্নীতির মাধ্যমে অযোগ্যদের যোগ্য হিসেবে নির্বাচন করা হচ্ছে। রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির ৮ দফা দাবী মেনে না নিলে রেলওয়ের সকল শ্রমিক কর্মচারী ও রেলপোষ্যদের সম্মিলিত করে অচিরেই রেলভবন কে কেন্দ্র করে কঠোর কর্মসূচির ডাক দেওয়া হবে।❞

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

এরকম আরও বার্তা
স্বত্ব © ২০১৫-২০২২ এশিয়ান বার্তা  

কারিগরি সহযোগিতায় Pigeon Soft