1. aknannu1964@gmail.com : AK Nannu : AK Nannu
  2. admin@asianbarta24.com : arifulweb :
  3. angelhome191@gmail.com : Mahbubul Mannan : Mahbubul Mannan
  4. info@asianbarta24.com : Dev Team : Dev Team
রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন

রেলভবনের টিএলআর গাড়ী চালকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ ও চাকরি স্থায়ীকরণে মহাপরিচালকের আশ্বাস

  • আপডেট করা হয়েছে : সোমবার, ৩ অক্টোবর, ২০২২
  • ২২ বার দেখা হয়েছে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
রেলভবন ঢাকার টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালকদের বকেয়া বেতন—ভাতা দ্রুত পরিশোধ ও চাকরি স্থায়ীকরণের আশ্বাস দিয়েছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ডি এন মজুমদার।

আজ ৩ অক্টোবর ২০২২ সোমবার সকাল ১০ টায় রেলভবন প্রাঙ্গনে রেলভবন ঢাকার টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালকসহ কর্মচারীবৃন্দের উদ্যোগে রেলভবনে কর্মরত টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালকসহ সকল টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ ও চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে মানববন্ধন ও রেলওয়ে মহাপরিচালক বরাবর স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

স্মারকলিপি পেয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ডি এন মজুমদার বলেন, খুবই দ্রুত রেলভবনে কর্মরত টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালকসহ সকল টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করা হবে এবং তাদের চাকরি স্থায়ীকরণেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এর আগে মানববন্ধনে রেলভবনে কর্মরত টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালকরা বলেন, রেলভবনে কর্মরত গাড়ী চালকসহ সকল টিএলআর/অস্থায়ী শ্রমিকরা দীর্ঘদিন থেকে চাকরি করে আসলেও তাদের স্থায়ীকরণ করা হচ্ছে না। অনেকেই দীর্ঘ ৮—১০ বছর ধরে টিএলআর হিসেবে চাকরি করে আসছেন। এ অবস্থায় চাকরিচ্যুত হলে তারা অন্যকোন চাকরিতে প্রবেশের সুযোগ পাবেন না। অন্যদিকে গত ৪ মাস থেকে বেতন—ভাতা না পাওয়ায় টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালক ও শ্রমিকরা পরিবার—পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। অথচ ০৩/০৫/২০০৩খ্রি. তারিখে তৎকালীন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সরকারি আদেশ মপবি/কঃবিঃশাঃ/কপগ—১১/২০০১—১১১ এর ৫নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে “বর্তমানে রাজস্বখাতে অস্থায়ীভাবে সৃষ্ট পদ ৫ (পাঁচ) বছর এবং উন্নয়ন প্রকল্প থেকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরিত পদ ৩ (তিন) বছর পর স্থায়ী করার যে বিধান রয়েছে তা রহিত করে রাজস্ব খাতে অস্থায়ীভাবে সৃষ্ট এবং উন্নয়ন প্রকল্প থেকে রাজস্বখাতে স্থানান্তরিত উভয় ধরণের ৩ (তিন) বছর পর স্থায়ী করা যাবে।”

মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ইতোমধ্যে আমরা দেখতে পেয়েছি গত প্রায় ২০ বছর যাবত রেলওয়েতে অস্থায়ী ভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হাজার হাজার শ্রমিক এ আদেশের উপর ভিত্তি করে মহামান্য আদালতের আদেশের মাধ্যমে তাদের নিজেদের চাকরি স্থায়ীকরণ সম্পন্ন করেছেন। যে আদেশ দ্বারা আদালতের রায়ে রেলওয়ে কতৃর্পক্ষ অস্থায়ী শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ীকরণ করছে, সেই সরকারি আদেশের পূর্ণবাস্তবায়ন করলে শ্রমিকদের আর আন্দোলন—সংগ্রাম বা আদালতের আশ্রয় নেয়ার প্রয়োজন হয় না। অথচ আমরা দীর্ঘদিন থেকে দাবি জানিয়ে আসলেও আমাদের দাবি পূরণ করা হচ্ছে না। টিএলআর বাতিল করে আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে জনবল নিয়োগের পায়তারা চলছে। এ অবস্থায় বেকারত্বের আশঙ্কা মাথায় নিয়ে চরম মানসিক অশান্তিতে আমাদের দিনযাপন করতে হচ্ছে। আমরা এ অবস্থা থেকে মুক্তি চাই। আউটসোর্সিং নামের দাসত্ব প্রথা চালুর পরিকল্পনা বাতিল চাই।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন রেলভবনের টিএলআর/অস্থায়ী গাড়ী চালক জাকির হোসেন, কামাল হোসেন, তাইজুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন, মোঃ খলিল, শাহাদাত হোসেন সুজন, মোঃ স্বপন, মোঃ জসিম, মোঃ হানিফ, মোঃ লিটন, শ্রী উজ্জল, শ্রী উৎপল, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ সেলিম সহ আরো অনেকেই।

বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন

এরকম আরও বার্তা
স্বত্ব © ২০১৫-২০২২ এশিয়ান বার্তা  

কারিগরি সহযোগিতায় Pigeon Soft